‘জনতার হাত থেকে বাঁচাতেই খালেদার বাড়িতে নিরাপত্তা’

Mokha
সমাজের কথা ডেস্ক॥ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মহীউদ্দীন খান আলমগীর বলেছেন, বিক্ষুব্ধ জনতার হামলা থেকে বাঁচাতেই খালেদার বাড়িতে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে।
রোববার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, “বিরোধী দল ঘনঘন হরতাল দেয়ায় জনতা বিক্ষুব্ধ হয়ে উঠেছে। সরকারের কাছে খবর আছে, বিক্ষুব্ধ জনতা খালেদা জিয়ার বাড়িতে হামলা করতে পারে। তাই তার বাসায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে।”
গত শুক্রবার বিকালে ১৮ দলীয় জোটের মহাসচিবদের বৈঠক শেষে রবি থেকে মঙ্গলবার ৭২ ঘণ্টার হরতালের ঘোষণা দেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।
এর পরপরই গুলশানে বিএনপি চেয়ারপার্সনের কার্যালয় ও বাসার আশেপাশে বিপুল সংখ্যক পুলিশ মোতায়েন করা হয়। রাতে কারওয়ান বাজারে হোটেল সোনারগাঁওয়ের সামনে থেকে গ্রেপ্তার হন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মওদুদ আহমদ, এম কে আনোয়ার ও রফিকুল ইসলাম মিয়া।
মধ্যরাতের পর খালেদা জিয়ার বাসা থেকে বের হওয়ার পর চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা আবদুল আওয়াল মিন্টু ও বিশেষ সহকারী সামসুর রহমান শিমুল বিশ্বাসকেও গ্রেপ্তার করা হয়।
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, “ফৌজদারি অপরাধে যারা জড়িত, আইন তাদের বিরুদ্ধে যাবেই। আইনের চোখে সবাই সমান।”
এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, “আইনে স্পষ্ট আছে, যদি কোনো সংসদ সদস্য ফৌজদারি অপরাধে অপরাধী হয়, তাহলে তার বিষয়ে স্পিকারকে অবহিত করা হবে। তাদের বিষয়েও স্পিকারকে অবহিত করা হয়েছে।”
গ্রেপ্তার পাঁচ বিএনপি নেতার মধ্যে মওদুদ ও এম কে আনোয়ার সংসদ সদস্য।
মিন্টু ও শিমুল গ্রেপ্তার হওয়ার পর বিএনপির কোনো নেতা আর চেয়ারপারসনের বাড়িতে ঢোকেননি। খালেদা জিয়াও বাড়িতেই রয়েছেন, গত দুদিনে বের হননি।

শেয়ার