রইলো বাকি টি-টোয়েন্টি

T20
সমাজের কথা ডেস্ক॥ ওয়ানডে সিরিজ জিতে উচ্ছ্বাসে মেতে ওঠা বাংলাদেশ চায় একমাত্র টি-টোয়েন্টিটাও জিততে।
স্বাগতিকরা ওয়ানডে সিরিজ একপেশে বানিয়ে ফেললেও লড়াইয়ের প্রতিশ্রুতি পাওয়া যাচ্ছে বাংলাদেশ ও নিউ জিল্যান্ডের একমাত্র টি-টোয়েন্টিতে।
নিউ জিল্যান্ডের বিপক্ষে আগের দুটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচে হারলেও ওয়ানডে সিরিজের সাফল্যে ভর করে এবার জয়ের ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী বাংলাদেশের অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম। আর বাংলাদেশ সফর থেকে অন্তত একটি জয় নিয়ে দেশে ফিরতে চায় নিউ জিল্যান্ড।
আজ বুধবার মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে খেলা শুরু হবে বেলা দেড়টায়। এই ম্যাচ দিয়েই সফর শেষ হবে নিউ জিল্যান্ডের। ৩-০ ব্যবধানে জেতা ওয়ানডে সিরিজটাকে মুশফিক বাহিনী আরো উপভোগ্য করে রাখতে চায় ম্যাচটি জিতে।

টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের অন্যতম শক্তিশালী দল নিউ জিল্যান্ডের বিপক্ষে ঘরের মাঠে কখনো খেলেনি বাংলাদেশ। ২০১০ সালে হ্যামিল্টনে সফরের একমাত্র টি-টোয়েন্টিতে মাত্র ৭৮ রানে অলআউট হওয়া বাংলাদেশকে ১০ উইকেটে হারিয়ে লজ্জায় ডুবিয়েছিল স্বাগতিকরা।

আর গত বছর শ্রীলঙ্কায় টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ব্রেন্ডন ম্যাককালামের শতকে ১৯১ রান করা নিউ জিল্যান্ড জিতেছিল ৫৯ রানে।

দুই ম্যাচেই অতিথিদের সেরা খেলোয়াড় ম্যাককালামের অনুপস্থিতি বাংলাদেশকে নিউ জিল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথম জয়ের স্বপ্ন দেখাচ্ছে। তবে সাকিব আল হাসান ও তামিম ইকবালের অনুপস্থিতি ভাবাচ্ছে বাংলাদেশের অধিনায়ককে।

মুশফিক বলেন, “তামিমের অবস্থা খুব একটা ভালো নয়। ওকে নিয়ে আমরা কোনো ঝুঁকি নিতে চাই না। আশা করছি, নতুন যারা সুযোগ পাবে, তারা তা কাজে লাগাবে।”

ওয়ানডে সিরিজের কম্বিনেশনে খুব একটা পরিবর্তন হবে না জানালেও নতুন কেউ সুযোগ পেতে পারেন বলে ইঙ্গিত দিয়েছেন মুশফিক। তিনি বলেন, “নতুনদের কেউ কেউ সুযোগ পেতে পারে। আসলে দলের সবাই পারফরম করছে। কাকে রেখে কাকে নেব, এ সিদ্ধান্ত নেয়াটা কঠিন হয়ে যাচ্ছে। এটা অবশ্য দলের জন্য ভালো লক্ষণ। আগামীকাল সৌম্য খেললেও অবাক হওয়ার মতো কিছু থাকবে না।”

তৃতীয় ওয়ানডের দলটিই রাখা হয়েছে নিউ জিল্যান্ডের বিপক্ষে একমাত্র টি-টোয়েন্টির জন্য, যাতে ইলিয়াস সানির জায়গায় স্বাগতিক দলে এসেছেন অলরাউন্ডার সৌম্য সরকার।

আর ম্যাচের দিন সকালে উইকেট দেখে নিউ জিল্যান্ড একাদশ নির্বাচন করা হবে বলে জানিয়েছেন পেসার টিম সাউদি।

শেয়ার