জেলা বিএনপির বিবৃতিতে অবাক দলীয় নেতাকর্মীরা ॥ সাজাপ্রাপ্ত ছিনতাইকারী রাজ্জাক যুবদল কর্মী!

jubodol
নিজস্ব প্রতিবেদক॥
নগর ১৮ দলের মিছিলের দু-গ্রুপের দ্বন্দ্বে ছুরিকাহত হন আবদুর রাজ্জাক। সে শহরের রেলগেট এলাকার মৃত পাচু সরদারের ছেলে। ছিনতাই মামলার ৭ বছরের সাজাপ্রাপ্ত আসামি ও ডিএসবির তালিকাভুক্ত বোমাবাজ আবদুর রাজ্জাক এখন যুবদল কর্মী। এই দাবি করে বিবৃতি দিয়েছে জেলা বিএনপি। চিহ্ণত ছিনতাইকারীকে যশোর জেলা যুবদলের সক্রিয় কর্মী হিসেবে দাবি করায় খোদ দলের নেতাকর্মীদের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।
দলীয় ও পুলিশ সূত্র জানায়, ২০০১ সালে আবদুর রাজ্জাক রেলগেট এলাকায় ছিনতাই ঘটনায় আটক হয়। পরে সে ছিনতাই মামলায় অভিযুক্ত হয়ে ৭ বছর কারাভোগ করে। এর পরে রাজ্জাক বোমাসহ পুলিশের হাতে কয়েকবার আটক হয়। ডিএসবি’র তালিকাভুক্ত ওই সন্ত্রাসী রোববার বিকেলে নগর ১৮ দলের মিছিলের সামনের সারিতে দাঁড়ানো নিয়ে দ্বন্দ্বে প্রতিপক্ষের ক্ষুরাঘাতে আহত হয়। এই ঘটনায় রাজ্জাক জেলা যুবদল ও ছাত্রদলের ৭ জন নেতার বিরুদ্ধে মামলা করেছে।
মামলায় অভিযুক্তরা হলো যুবদল নেতা রেলগেট এলাকার খাইরুল বাশার শাহিন, স্টেডিয়াম পাড়ার শিমুল, খড়কির বশির, খান মাসুম, ভোলা ট্যাংক রোডের পলাশ, নাজির শংকরপুরের রবিউল ও জেলা ছাত্রদলের সহসভাপতি ফারুক হোসেন। মামলার আসামি ও বিবৃতি উল্লেখকৃতরা যুবদল ও ছাত্রদলের বিভিন্ন পদে রয়েছে। অথচ জেলা বিএনপি সেই চি‎িহ্ণত ছিনতাইকারী পক্ষে বিবৃতি দিয়েছে। জেলা বিএনপির এমন বিতর্কিত বিবৃতিতে জেলা যুবদল ও ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা বিস্ময় প্রকাশ করেছেন। এদিকে সোমবার বিএনপি পন্থি একটি পত্রিকায় রাজ্জাককে যুবদল কর্মী পরিচয় দিয়ে সংবাদ প্রকাশিত হওয়ায় শহরজুড়ে সমলোচনার ঝড় উঠেছে।

শেয়ার