গতকাল প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজিব ওয়াজেদ জয় যশোর সফর শেষ করে খুলনায় মতবিনিময় করেন

Cakladerjoy
খুলনা প্রতিনিধী জানায়, সেখানে দলীয় নেতাকর্মীদের সাথে মতবিনিময় কালে
প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সচিব ওয়াজেদ জয় বলেন, খুলনা আমার নানা বাড়ি। এখানে আমার মামার বাড়ি। এখানে অনেক থেকেছি। আবার এখানে আসবো। তিনি আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, গত পাঁচ বছরে যে উন্নয়ন হয়েছে তা ’৭৫এর পরে এত উন্নয়ন কারো সময়ে হয়নি। রাস্তা-ঘাটসহ দক্ষিণা-পশ্চিমাঞ্চলে ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিরোধী দলীয় নেত্রীকে সর্বদলীয় নির্বাচিত নিয়ে সরকার গঠনের প্রস্তাব দিয়েছিলেন। তিনি প্রধানমন্ত্রীর কথা শুনেন নি। প্রধান মন্ত্রীর প্রস্তাব প্রত্যখান করে একটি অনির্বাচিত অবৈধ সরকারের প্রস্তাব দিয়েছেন। আমরা চাইনা আবার এদেশে অবৈধ সরকার আসুক
গতকাল বিকাল তিনটায় খুলনা সার্কিট হাউজে আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের সাথে মতবিনিময়কালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। মহানগর ও জেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সাবেক মেয়র আলহাজ্ব তালুকাদর আবদুল খালেকের সভাপতিত্বে ও মহানগর আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব মিজানুর রহমান মিজানের পরিচালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, কেন্দ্রিয় নেত্রী, শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান এমপি, বাগেরহাট-১ আসনের সাংসদ শেখ হেলাল উদ্দিন, শেখ রেহানার তনয় রেদওয়ান মুজিব সিদ্দিকী ববি, কেন্দ্রীয় নেতা এস.এম কামাল হোসেন, খুলনা জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও জেলা পরিষদ প্রশাসক শেখ হারুনুর রশীদ, জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক হুইপ এস.এম মোস্তফা রশিদী সুজা, জাতীয় কমিটির সদস্য সোহরাব আলী সানা এমপি, বাগেরহাট জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদ প্রশাসক শেখ কামরুজ্জামান টুকু, প্রধানমন্ত্রীর চাচাতো ভাই শেখ সালাউদ্দিন জুয়েল, নজরুল ইসলাম বাবু এমপি, কেন্দ্রিয় উপ-কমিটির সহ-সম্পাদক অসিত বরণ বিশ্বাস, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ সভাপতি বদিউজ্জামান সোহাগ। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগ নেতা এ্যাডঃ চিশতি সোহরাব হোসেন শিকদার, কাজী আমিনুল হক, এ.এফ.এম মাকসুদুর রহমান, শেখ হায়দার আলী, গাজী মোহাম্মদ আলী, অধ্যাপক ফকির আবু হোসেন, শেখ মহিউদ্দিন, এ্যাডঃ শেখ মোঃ নুরুল হক, উপজেলা চেয়ারম্যান গাজী আব্দুল হাদি, মল্লিক আবিদ হোসেন কবির, ডাঃ শেখ বাহারুল আলম, এ্যাডঃ রজব আলী সরদার, এ্যাডঃ সুজিত অধিকারী, নারায়ন চন্দ্র চন্দ এমপি, ননী গোপাল মন্ডল এমপি, পঞ্চানন বিশ্বাস, এমডিএ বাবুল রানা, হুমায়ূন কবির ববি, উপজেলা চেয়ারম্যান সরফুদ্দিন বিশ্বাস বাচ্চু, উপজেলা চেয়ারম্যান আশরাফুল আলম খান, এ্যাডঃ আইয়ুব আলী শেখ, এ্যাডঃ নবকুমার চক্রবর্তী, উপধ্যক্ষ আলমগীর কবির, মকবুল হোসেন মিন্টু, এ্যাডঃ নিমাই চন্দ্র রায়, শ্যামল সিংহ রায়, এ্যাডঃ ফরিদ আহমেদ, এ্যাডঃ কেরামত আলী, আশরাফুল ইসলাম, শেখ মোঃ ফারুক আহমেদ, জামাল উদ্দিন বাচ্চু, এ্যাড. অলোকা নন্দা দাস, নুর ইসলাম বন্দ, গাজী রফিকুল ইসলাম, শেখ মোঃ আনোয়ার হোসেন, উপজেলা চেয়ারম্যান শেখ আলী আকবর, অধ্যক্ষ শহিদুল হক মিন্টু, ফেরদৌস আলম চাঁন ফারাজী, কাজী শামীম আহসান, অমিয় সরকার গোরা, মোঃ মাহবুব আলম সোহাগ, অধ্যাপক মিজানুর রহমান মিজান, জোবায়ের আহমেদ খান জবা, আবুল কালাম আজাদ, গাজী ফায়েকুজ্জামান, মোঃ শাহাজাদা, এ্যাড. আব্দুল লতিফ, শেখ সৈয়দ আলী, অধ্যক্ষ এবিএম শফিকুল ইসলাম, শেখ আকরাম হোসেন, বেগ লিয়াকত আলী, এ্যাড. মোস্তাফিজুর রহমান কালূ, একেএম সানাউল্লাহ নান্নু, গাজী হাফিজুর রহমান, আবুল কালাম আজাদ কামাল, এ্যাড. সাইফুল ইসলাম, অধ্যক্ষ নুরুদ্দিন আল মাসুদ, মনিরুজ্জামান খান খোকন, উপজেলা চেয়ারম্যান শেখ আবুল হোসেন, স.ম রেজওয়ান, এ্যাডঃ খন্দকার মজিবুর রহমান, মোল্লা আকরাম হোসেন, মোঃ শাহজাহান পারভেজ, শেখ শহিদুল ইসলাম, আলী আজগর মিন্টু, কামাল উদ্দিন বাদশা, রশিদুজ্জামান মোড়ল, জিএম মহসিন রেজা, আব্দুর রাজ্জাক মলঙ্গী, রবিন্দ্রনাথ ঢালী, আব্দুস সাত্তার ভূইয়া, লুৎফুন নেছা লুৎফা, অধ্যাপক আশরাফুজ্জামান বাবুল, অধ্যাপক ফ.ম সালাম, আলাউদ্দিন আল আজাদ মিলন, বিএম জাফর, শেখ পীর আলী, মেজবাহ হোসেন বুরুজ, এ্যাড. সরদার আনিসুর রহমান পপলু, কামরুজ্জামান জামাল, আকতারুজ্জামান বাবু, মনিরুজ্জামান সাগর, হাফেজ মোঃ শামীম, মালিক সরোয়ার উদ্দিন, শেখ মোশাররফ হোসেন, জেডএ মাহমুদ ডন, মোঃ মোতালেব হোসেন, শেখ মোঃ ফেরদাউস, শেখ মোঃ আব্দুল্লাহ, কাউন্সিলর আমিনুল ইসলাম মুন্নু, কাউন্সিলর শামসুজ্জামান মিয়া স্বপন, কাউন্সিলর মাহমুদা বেগম, কাউন্সিলর পারভীন আক্তার, কাউন্সিলর খুরশীদ আলম টোনা, সাবেক কাউন্সিলর হালিমা ইসলাম, কাউন্সিলর মেমরী সুফিয়া রহমান শুনু, ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তফা সরোয়ার, মুন্সি নাহিদুজ্জামান, আব্দুস সালাম ঢালী, শেখ আবুল হোসেন, শেখ মোঃ আবু হানিফ, শফিকুর রহমান পলাশ, মাসুদুর রহমান বিশ্বাস, দেব দুলাল বাড়ৈই বাপ্পি, আরাফাত হোসেন পল্টু, মুশফিকুর রহমান সাগর, আসাদুজ্জামান রাসেল, হোসেনুজ্জামান হোসেন।
এর আগে তিনি হোটেল টাইগার গার্ডেনে আইটি বিষয়ক এক সেমিনারে অংশ গ্রহণ করেন। এছাড়া তিনি খুলনায় আসার পথে কুদির বটতলায় এক পথসভায় বক্তৃতা করেন। বিকাল সাড়ে ৩টায় যশোরের উদ্দেশ্যে রওনা হন। সেখানে তিনি যশোর আওয়ামী লীগের সাথে মতবিনিময় করে ঢাকায় চলে যান।

শেয়ার