যশোর-খুলনার পথে পথে ফুলেল শুভেচ্ছায় সিক্ত হলেন বঙ্গবন্ধুর দু’নাতি ॥ সর্বদলীয় সরকারের অধীনে সঠিক সময়ে নির্বাচন- জয়

Caklader
নিজস্ব প্রতিবেদক॥ যশোরের পথে পথে ফুলেল শুভেচ্ছায় সিক্ত হলেন বঙ্গবন্ধুর দু’নাতি সজীব ওয়াজেদ জয় ও রেদওয়ান সিদ্দিকী ববি। তাদের আগমনকে ঘিরে গতকাল অন্যরকম এক উৎসবে মেতে উঠেছিল এ অঞ্চলের মানুষ। ১০ম জাতীয় সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে দক্ষিণ অঞ্চলে নির্বাচনী প্রচারণায় আসেন জয় ও ববি। বঙ্গবন্ধুর দু’দৌহিত্রকে কাছে পেয়ে তৃণমূলের নেতাকর্মীদের মাঝে যোগ হয়েছে নতুন মাত্রা। সকল দ্বিধাদ্বন্দ্ব ভুলে তারা এক কাতারে সামিল হয়ে তারুণ্যের অহংকার দু’ অতিথিকে প্রাণঢালা অভিনন্দন জানান। দক্ষিণ অঞ্চলে সফরের অংশ হিসেবে তারা বুধবার বাগেরহাট, খুলনা এবং সর্বশেষ যশোর বিমান বন্দরে সংগঠনের শীর্ষ নেতৃবৃন্দের সাথে মতবিনিময় করেন। যশোরে মতবিনিময় সভায়
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পুত্র ও তাঁর তথ্য-প্রযুক্তি উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় বলেছেন, আর কোনো ছাড় দেয়া হবে না, সর্বদলীয় সরকারের অধীনে সঠিক সময়ে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এ জন্য নেতাকর্মীদের সকল ভেদাভেদ ভুলে ঐক্যবদ্ধভাবে মাঠে থাকারও আহ্বান জানিয়েছেন তিনি। শনিবার সন্ধ্যায় যশোর বিমানবন্দরের ভিআইপি লাউঞ্জে বৃহত্তর যশোর অঞ্চলের শীর্ষ নেতাকর্মীদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে তিনি এ কথা বলেন। সংক্ষিপ্ত মতবিনিময় সভায় সংসদ সদস্য শেখ হেলাল, শেখ রেহানার পুত্র রেদওয়ান সিদ্দিকী ববি, জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি সাবেক এমপি আলী রেজা রাজু, সাধারণ সম্পাদক সদর উপজেলা চেয়ারম্যান শাহীন চাকলাদার, সাংসদ খান টিপু সুলতান, সাংসদ সদস্য খালেদুর রহমান টিটো, সংসদ সদস্য আব্দুল মান্নান, সংসদ সদস্য শফিকুল আযম চঞ্চল, সংসদ সদস্য ব্রিগেডিয়ার বিএম বাকের, সাবেক প্রতিমন্ত্রী অধ্যাপক রফিকুল ইসলামসহ যশোরের বিভিন্ন উপজেলার চেয়ারম্যান এবং আওয়ামী লীগের শীর্ষ পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। বিমান বন্দরের ভিআইপি লাউঞ্চে জেলা আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগসহ সহযোগী সংগঠনের পক্ষ থেকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানানো হয়। পরে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলী রেজা রাজু ও সাধারণ সম্পাদক শাহীন চাকলাদার বক্তব্য রাখেন। শাহীন চাকলাদার তার শুভেচ্ছা বক্তৃতায় বলেন, অতিতের যে কোন সময়ের চেয়ে যশোরে আরো সুদৃঢ় এবং শক্ত অবস্থানে রয়েছে আ’লীগ। তিনি সর্বশেষ ১৮ দলীয় জোটের ৬০ ঘণ্টা হরতালের উদাহরণ টেনে বলেন তাদের ঐক্যবদ্ধ অবস্থানে মাঠে নামতে পারেনি বিএনপি জামায়াত। তিনি বলেন দেশের প্রথম শত্রুমুক্ত জেলা যশোর আওয়ামী লীগের দুর্গ। গত নির্বাচনের ন্যায় এবারও জেলার ৬টি আসন থেকে আওয়ামী লীগের প্রার্থী বিজয়ী হবে বলে তিনি দৃঢ়ভাবে আশা প্রকাশ করেন। মতবিনিময় শেষে সন্ধ্যা ৭ টায় নভো এয়ারের বিমানযোগে তিনি ঢাকার উদ্দেশে যাত্রা করেন। এর আগে রাজপথে হাজার হাজার মানুষের ফুলেল শুভেচ্ছায় সিক্ত হন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা ও তাঁর পুত্র সজীব ওয়াজেদ জয় ও শেখ রেহানার পুত্র ববি। শনিবার বিকেলে খুলনা থেকে যশোরে আসার পথে অভয়নগর উপজেলা থেকে বিমান বন্দর পর্যন্ত হাজার হাজার মানুষ ফুল ছিটিয়ে সজীব ওয়াজেদ জয় ও রেদওয়ান সিদ্দিকী ববিকে বরণ করে নেন। রাস্তার দুই পাশ থেকে সাধারণ মানুষ ফুল ছিটিয়ে তাদের শুভেচ্ছা জানান। এসময় সজীব ওয়াজেদ জয় হাত নেড়ে রাস্তার দুই পাশে দাঁড়িয়ে থাকা মানুষের অভিবাদনের জবাব দেন। জয়ের আগমন উপলক্ষে এ অঞ্চলের মানুষের মধ্যে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনার সৃষ্টি হয়। বেলা ১২ টা থেকেই জেলা আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, শ্রমিকলীগ, কৃষকলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ দলের স্ব স্ব ব্যানার, ফেস্টুন, প্ল্যাকার্ড ও ফুল নিয়ে রাস্তার পাশে অবস্থান করতে থাকে। কয়েক ঘন্টা দাঁড়িয়ে থাকার পর দলীয় নেতাকর্মীরা সজীব ওয়াজেদ জয়কে দেখতে পান। এসময় স্লোগান ও ফুলের শুভেচ্ছায় তাকে স্বাগত জানানো হয়। শহরের গাড়িখানা রোডে কথা হয় সত্তর বছর বয়সী মুক্তিযোদ্ধা আমীর আলীর সাথে। তিনি জানান, ১৯৬৯ সালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান যশোরের এসেছিলেন। তাঁর সাথে আমার কথা হয়েছিলো। তার মেয়ে শেখ হাসিনাকে দেখেছি বেশ কয়েকবার। কিন্তু সজীব ওয়াজেদ জয়কে এবার দেখার জন্য ঘন্টার পর ঘন্টা রাস্তায় দাঁড়িয়ে আছি। এক নজর দেখতে পেলেও আমার বড় পাওয়া। দড়াটানা এলাকায় রাস্তার পাশে অপেক্ষায় থাকা শহরে ঘোপ নওয়াপাড়া এলাকার ষাটোর্ধ্ব এক মহিলা বলেন, ‘হাসিনার (প্রধানমন্ত্রী) ছেলে আসছে তার দেখতি আসছি আমরা। এদিকে সজীব ওয়াজেদ জয় ও রেদওয়ান সিদ্দিকী ববিকে স্বাগত জানাতে ব্যাপক প্রস্তুতি নেয় আওয়ামী লীগও। যশোরের অভয়নগর উপজেলা থেকে বিমান বন্দর পর্যন্ত রাস্তার দুপাশে তৈরি করা হয় বিশাল বিশাল তোরণ। দলীয় নেতাকর্মীদের শুভেচ্ছা ব্যানারসহ নানা প্লাকার্ড টানানো হয়েছে রাস্তা ও মোড়ে মোড়ে। দলীয় নেতাকর্মীদের মধ্যে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনার সৃষ্টি হয়। রাজপথে মানুষের ঢল নামে। এদিকে, সজীব ওয়াজেদ জয় ও রেদওয়ান সিদ্দিকী ববিকে যশোর বিমানবন্দরে জেলা আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে ফুল দেয়ার সময় উপস্থিত ছিলেন যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. আলী রায়হান, সিনিয়র সদস্য হায়দার গণি খান পলাশ, সাংগঠনিক সম্পাদক আফজাল হোসেন, দপ্তর সম্পাদক মীর জহুরুল ইসলাম, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক খয়রাত হোসেন, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল খালেক, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক অ্যাড. আসাদুজ্জামান আসাদ, আইন বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল কাদের, যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক মুস্তাফিজুর রহমান মুকুল, উপ প্রচার সম্পাদক ফারুক আহম্মেদ কচি, সদস্য রেজাউল ইসলাম রেজা, ত্রাণ ও দুর্যোগ বিষয়ক সম্পাদক খায়রুজ্জামান খসরু, শহর শাখার ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ইয়াসিন সিদ্দিকী, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাসান ইমাম লাল, সদর উপজেলা শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক শাহারুল ইসলাম, জেলা যুবলীগের সহসভাপতি মুনির হোসেন টগর, প্রচার সম্পাদক জাহিদ হোসেন মিলন, স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক এহসানুল হক লিটু, জেলা মহিলা লীগের সভাপতি নুর জাহান ইসলাম নিরা, মহিলা সংস্থার জেলা চেয়ারম্যান লাইজু জামান, জেলা যুবমহিলা লীগের সভাপতি মঞ্জুন্নাহার নাজনীন সোনালী, সাধারণ সম্পাদক শেখ রোকেয়া পারভীন ডলি, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি আসাদুজ্জামান মিঠু, সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ নুরে আলম, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এসএম মাহমুদ হাসান বিপু ও সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক শফিকুল ইসলাম জুয়েল, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আরিফুল ইসলাম রিয়াদ, সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন বিপুল প্রমুখ।

শেয়ার