নজিরবিহীন প্রতিশোধ নেওয়ার হুমকি পাক তালেবানের

Taliban
বাংলানিউজ ॥
যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা সিআইএ’র ড্রোন (চালকবিহীন) হামলায় পাকিস্তানের তেহরিক-ই-তালেবান (টিটিপি) প্রধান হাকিমুল্লাহ মেহসুদ নিহত হওয়ায় নজিরবিহীন প্রতিশোধ নেওয়ার হুমকি দিয়েছে জঙ্গি সংগঠনটি। একইসঙ্গে এই হামলায় সিআইএ’র সঙ্গে পাকিস্তান সরকারও জড়িত অভিযোগ করে সরকারের বিরুদ্ধেও চরম প্রতিশোধ নেওয়ার হুমকি দিয়েছে তারা।
উত্তর ওয়ারিজিস্তানের তালেবান কমান্ডার আবু ওমর বলেন, আমরা নজিরবিহীন প্রতিশোধ নেবো। শত্রুদের খুব ভালোভাবেই চিনি আমরা।
ওমর মনে করেন, পাকিস্তান সরকার এই ড্রোন হামলার সঙ্গে ‘ওতপ্রোতভাবে জড়িত’।
শুক্রবার আফগানিস্তান সীমান্তের কাছে পাকিস্তানের উত্তর ওয়ারিজিস্তানের দুর্গম এলাকায় মার্কিন ড্রোন হামলায় তিন সহযোগীসহ তালেবানের পাকিস্তান শাখার প্রধান হাকিমুল্লাহ নিহত হন।
এ ঘটনার পর নিউইয়র্ক টাইমসের একটি প্রতিবেদনে বলা হয়, হাকিমুল্লাহ নিহত হওয়ার জের ধরে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ তালেবানদের সঙ্গে যে শান্তি আলোচনায় বসার পরিকল্পনা করছেন সেটা ভেস্তে যেতেই বসেছে।
উল্লেখ্য, সিআইএ’র ড্রোন হামলায় ২০০৯ সালে তৎকালীন তালেবান প্রধান বায়তুল্লাহ মেহসুদ নিহত হওয়ার পর জঙ্গি সংগঠনটির প্রধানের দায়িত্ব নেন হাকিমুল্লাহ মেহসুদ। ২০১০ সালে নিউইয়র্কের টাইমস স্কয়ারে বোমা হামলা চালানোর ব্যর্থ ষড়যন্ত্রের সঙ্গে হাকিমুল্লাহ জড়িত ছিলেন বলে মনে করে যুক্তরাষ্ট্র।
এজন্য, ‘মোস্ট ওয়ান্টেড’ সন্ত্রাসী হিসেবে তার মাথার মূল্য ৫০ লাখ মার্কিন ডলার ঘোষণা করে সিআইএ।
অবশ্য, এর আগেও কয়েকবার টিটিপি প্রধান হাকিমুল্লাহর নিহতের খবর শোনা যায়। তবে, শুক্রবারের হামলায় তার নিহতের খবরটির সত্যতা নিশ্চিত করেছে কয়েকটি গোয়েন্দা সংস্থা, সেনাবাহিনী ও তালেবান সূত্র।
সংবাদ সংস্থা এএফপি যুক্তরাষ্ট্রের এক জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তার বরাত দিয়ে হাকিমুল্লাহর মৃত্যুর খবর প্রকাশ করে। ওই কর্মকর্তা এএফপিকে জানিয়েছেন, তারা হাকিমুল্লাহর নিহতের ব্যাপারে নিশ্চিত হয়েছেন।
তবে, যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দা সংস্থা সিআইএ ও হোয়াইট হাউস এ ব্যাপারে কোনো মন্তব্য করতে অস্বীকৃতি জানায়।
অন্যদিকে যুক্তরাষ্ট্রের ড্রোন হামলাকে পাকিস্তান সরকার দেশের সার্বভৌমত্বের জন্য সবসময়ই হুমকি মনে করে এর প্রতিবাদ করে আসছে। অবশ্য, নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক পাকিস্তানের কয়েকজন কর্মকর্তা জানিয়েছেন, সিআইএ’র এ হামলা তাদের উপকারে আসবে।

শেয়ার