নির্বাচনকে ঘিরে জয়ের ৮ প্রতিশ্রুতি

Joy
বাংলানিউজ ॥
ঢাকা থেকে গোপালগঞ্জে যাওয়ার পথে বিভিন্ন স্থানে পথসভায় আগামী নির্বাচনকে ঘিরে আটটি খাতে উন্নয়নের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী পুত্র ও তার তথ্য-প্রযুক্তি উপদেষ্টা সজিব ওয়াজেদ জয়।
শুক্রবার সকাল ৯টায় গোপালগঞ্জের উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ করেন জয়। পথিমধ্যে সিরাজদিখানের নিমতলা, মুন্সিগঞ্জের শ্রীনগর, মাওয়া চৌরাস্তা, মাদারীপুরের শিবচর, ফরিদপুরের ভাঙা, গোপালগঞ্জের মকসুদপুর, ভাটিয়াপাড়ায় আয়োজিত পথসভায় বক্তব্য রাখেন তিনি।
পথসভাগুলোর জনতা সাদা পা’জামা, পাঞ্জাবির ওপরে মুজিব কোট পরিহিত জয়ের ভেতরে যেন তার নানা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছায়া দেখে নেন। মার্জিত ভাষায় অত্যন্ত সাবলীল ভঙ্গীকে বক্তব্য চালিয়ে যান জাতির জনকের যোগ্য উত্তরসূরী।
এ সময় কেরানীগঞ্জ থেকে শুরু করে বিভিন্ন স্থানে মানুষ রাস্তার পাশে দাঁড়িয়ে ফুল দিয়ে তাকে শুভেচ্ছা জানায়।
এসব পথসভার বক্তব্যে তিনি বিভিন্ন খাতের উন্নয়ন চিত্র তুলে ধরার পাশাপাশি আগামীতে এসব খাতে আরও উন্নয়নের প্রতিশ্রুতি দিয়ে নৌকা মার্কায় ভোট চান।
পথসভাগুলোতে জয় তার বক্তব্যে বলেন, আগামীতে আমরা ক্ষমতায় গেলে প্রতিটি জেলায় জেলায় বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন করা হবে। এছাড়া বর্তমানে যে হারে উপবৃত্তি, বিনা বেতনে পড়াশোনার সুযোগ রয়েছে তার পরিসীমা বৃদ্ধি করা হবে।
তিনি বলেন, বর্তমান সরকারের আমলে সারাদেশে ১৪ হাজার কমিউনিটি ক্লিনিক স্থাপন করা হয়েছে। এসব ক্লিনিকে মানুষ বিনামূল্যে স্বাস্থ্যসেবা পাচ্ছে। আগামী ক্ষমতায় আসলে এভাবে বিনামূল্যে স্বাস্থ্যসেবা দিতে প্রতিটি গ্রামে স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্র চালু করা হবে।
বিদ্যুৎখাত নিয়ে তিনি বলেন, বিএনপি ক্ষমতায় থাকাকালে বিদ্যুতের উৎপাদন কমেছে। কিন্তু আমরা বিদ্যুতের উৎপাদন সাড়ে ৩ হাজার মেগাওয়াট থেকে বাড়িয়ে ৯ হাজার মেগাওয়াটে উন্নীত করেছি। আগামীতে আমরা ক্ষমতায় আসলে প্রতিটি ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে দেয়া হবে।
যোগাযোগ ব্যবস্থা সম্পর্কে তিনি বলেন, বর্তমান সরকারের আমলে দেশের যোগাযোগ খাতে ব্যাপক উন্নয়ন সাধন করা হয়েছে। আগামীতে আমরা ক্ষমতায় আসলে পদ্মা সেতু বানাবোই।
তথ্য-প্রযুক্তি খাত সম্পর্কে জয় বলেন, বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর প্রতিটি ইউনিয়নে তথ্যসেবা কেন্দ্র চালু করা হয়েছে। আগামীতে আমরা ক্ষমতায় আসলে এসব তথ্যসেবা কেন্দ্রকে ফাইবার অপটিক কেবলের আওতায় নিয়ে আসবো।

সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ নির্মূল প্রসঙ্গে তিনি বলেন, বিএনপি-জামায়াত জোট ক্ষমতায় থাকাকালে দেশে জঙ্গিবাদের উত্থান হয়েছে, বোমাবাজি, সন্ত্রাস হয়েছে। আমাদের সরকারের এই ৫ বছর মেয়াদে আমরা দেশের কোথাও জঙ্গিবাদের উত্থান বা বোমাবাজি হতে দেইনি। আগামীতে ক্ষমতায় আসলে আমরা সন্ত্রাস নির্মূল করবো এবং জঙ্গিবাদকে কোনোভাবেই দেশে ফিরে আসতে দেবো না।
দুর্নীতি দমন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, বিএনপি ক্ষমতায় থাকাকালে বাংলাদেশ দুর্নীতিতে ৫ বার চ্যাম্পিয়ন হয়েছিলো। আমরা ক্ষমতায় আসার পর দেশের দুর্নীতি কমিয়েছি। এখন দুর্নীতিতে বাংলাদেশের অবস্থান ৪০তম। আগামীতে এটা আরও কমানো হবে।
জয় আরও বলেন, বর্তমান সরকার দারিদ্র্য বিমোচনের জন্য কাজ করছে। দেশে দারিদ্র্যের হার আমরা ৪০ শতাংশ থেকে কমিয়ে ২৬ শতাংশে নিয়ে এসেছি। আগামীতে আমরা ক্ষমতায় আসলে ২০২১ সালের মধ্যে দারিদ্র্যমুক্ত বাংলাদেশ গড়বো।

শেয়ার