ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির বর্ধিত সভায় বক্তারা যুদ্ধাপরাধের বিচার চলমানে সুরক্ষা আইন পাস করতে হবে

Nirmulcomite
নিজস্ব প্রতিবেদক॥ যশোরে ঘাতক দালাল নিমূল কমিটির বর্ধিত সভায় বক্তারা বলেছেন, ১৯৭৫ থেকে ৯০ সাল পর্যন্ত অগণতান্ত্রিক শাসনের ফলে সাম্প্রদায়িক শক্তির উত্থান হয়েছে। মৌলবাদী গোষ্ঠী অনেক শক্তি সঞ্চয় করেছে। অগণতান্ত্রিক সরকার ক্ষমতায় আসলেই মৌলবাদী চক্র মাথাচাড়া দিয়ে ওঠে। এই পরিস্থিতি যেন আর সৃষ্টি না হয় সেজন্য আমাদের সজাগ থাকতে হবে।
বৃহস্পতিবার বিকেলে ১ নং আইনজীবি সমিতি ভবনে যশোর জেলা ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সভাপতি হারুণ অর রশিদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বর্ধিত সভায় বক্তারা আরও বলেন, যুদ্ধাপরাধীদের বিচার চলমান রয়েছে। জাতির সামনে এখন প্রশ্ন আসছে সরকার পরিবর্তন হলে কি হবে। ইতোমধ্যে বিএনপি ঘোষণা দিয়েছে তারা প্রকৃত যুদ্ধাপরাধীদের বিচার করবে। তাহলে এই বিচারের কি হবে। তাই যুদ্ধাপরাধীদের বিচার প্রক্রিয়া যেন আর কেউ বানচাল করতে না পারে সেজন্য এখনই সংসদে সুরক্ষা বিল পাস করতে হবে। এখনই জোরালো দাবি তুলতে হবে। নেতৃবৃন্দ বলেন, জামায়াত শিবির মনে করে দেশে বিশৃংখলা সৃষ্টি করতে পারলেই পার পাওয়া যাবে। মৌলবাদী জামায়ত শিবিরের রাজনীতি নিষিদ্ধের দাবি ভুলে যাওয়ার সুযোগ নেই।
বর্ধিত সভায় বক্তব্য রাখেন ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সাধারণ সম্পাদক কাজী মুকুল, কেন্দ্রীয় সদস্য শামসুল আলম মঞ্জু, সংগঠনের জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক কাজী ফরিদুল ইসলাম, ওয়ার্কার্স পার্টি পলিট ব্যুরোর সদস্য ইকবাল কবির জাহিদ, অধ্যাপক সন্তোষ হালদার, মুক্তিযোদ্ধা সংহতি পরিষদের সভাপতি ও কলামিস্ট আমিরুল ইসলাম রন্টু, সিপিবি জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক অধাপক গোলাম মোস্তফা প্রমুখ। সভা পরিচালনা করেন জেলা ঘাতক দালাল কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক মুজিবুদ্দৌলাহ সরদার কনক।

শেয়ার