আউট সোর্সিংএ বাংলাদেশ মডেল হবে- আইসিটি সচিব

Learning
নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের সচিব নজরুল ইসলাম খান বলেছেন, জনগনের দোরগোড়ায় ই-সেবা পৌঁছে দেয়ার জন্য সরকার কাজ করছে। প্রশিক্ষনের মাধ্যমে দক্ষ জনশক্তি তৈরি করা হচ্ছে। আগামিতে ফ্রিল্যান্সারদের জন্য টাকা আয়ের দোকান খুলে দেয়া হবে। তারা ঘরে বসে আয় করবে। কারো সাথে দেখা করার প্রয়োজন হবে না। প্রত্যেক ফ্রিল্যান্সার ইন্ডিাস্ট্রিয়াল হবেন।তিনি বলেন, আউট সোর্সিং এ বাংলাদেশ মডেল হবে। বৃহস্পতিবার সকালে সরকারি এমএম কলেজের ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগের সেমিনার কক্ষে অনুষ্ঠিত লার্নিং এন্ড আর্নিং আউট সোসিং বিষয়ক ৫ দিন ব্যাপী প্রশিক্ষণ কর্মশালার সমাপনী ও সনদপত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য তিনি একথা বলেন। তিনি আরও বলেন, এমএম কলেজে কম্পিউটার সায়েন্স বিভাগ খোলা হবে। এজন্য অধ্যক্ষকে এগিয়ে আসতে হবে। পরবর্তী পদক্ষেপ আমরা নেব। একই সাথে ক্যাম্পাসে ফ্রি ওয়াইফাই সেবা চালু করার জন্য জেলা প্রশাসককে সহযোগিতা করার আহবান জানান। তিনি বলেন, ইচ্ছা করলে এই প্রশিক্ষণ ঢাকা করতে পারতাম। কিন্ত খরচ কমিয়ে জনগনের দোরগোড়ায় এসে প্রশিক্ষনের ব্যবস্থা করা হয়েছে। শিক্ষকদের বেশি করে প্রশিক্ষণ দিতে হবে। কারণ শিক্ষার্থীদের সাথে শিক্ষকদের সম্পর্ক বেশি।
কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর এসএম ইবাদুল হকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক মোস্তাফিজুর রহমান। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন কলেজের শিক্ষক পরিষদের সম্পাদক সোলজার রহমান, প্রশিক্ষানার্থী মেজর মোখলেছ উদ্দিন। আলোচনা শেষে ৬৫জন প্রশিক্ষণার্থীর হাতে সনদ তুলে দেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি।
অপরদিকে সরকারি মহিলা কলেজে ৭০ জন প্রশিক্ষণার্থীর মধ্যে সনদ বিতরণ করেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের সচিব নজরুল ইসলাম খান। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মোসাম্মৎ ফাতেমা খাতুন। বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক মোস্তাফিজুর রহমান। ২৭ অক্টোবর লানিং এন্ড আনিং প্রশিক্ষণ কর্মসূচি শুরু হয়। গতকাল সনদপত্র বিতরণের মধ্যদিয়ে ৫ দিনের প্রশিক্ষণ শেষ হয়েছে।
নিজস্ব প্রতিবেদক॥ তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের সচিব নজরুল ইসলাম খান বলেছেন, জনগনের দোরগোড়ায় ই-সেবা পৌঁছে দেয়ার জন্য সরকার কাজ করছে। প্রশিক্ষনের মাধ্যমে দক্ষ জনশক্তি তৈরি করা হচ্ছে। আগামিতে ফ্রিল্যান্সারদের জন্য টাকা আয়ের দোকান খুলে দেয়া হবে। তারা ঘরে বসে আয় করবে। কারো সাথে দেখা করার প্রয়োজন হবে না। প্রত্যেক ফ্রিল্যান্সার ইন্ডিাস্ট্রিয়াল হবেন।তিনি বলেন, আউট সোর্সিং এ বাংলাদেশ মডেল হবে। বৃহস্পতিবার সকালে সরকারি এমএম কলেজের ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগের সেমিনার কক্ষে অনুষ্ঠিত লার্নিং এন্ড আর্নিং আউট সোসিং বিষয়ক ৫ দিন ব্যাপী প্রশিক্ষণ কর্মশালার সমাপনী ও সনদপত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য তিনি একথা বলেন। তিনি আরও বলেন, এমএম কলেজে কম্পিউটার সায়েন্স বিভাগ খোলা হবে। এজন্য অধ্যক্ষকে এগিয়ে আসতে হবে। পরবর্তী পদক্ষেপ আমরা নেব। একই সাথে ক্যাম্পাসে ফ্রি ওয়াইফাই সেবা চালু করার জন্য জেলা প্রশাসককে সহযোগিতা করার আহবান জানান। তিনি বলেন, ইচ্ছা করলে এই প্রশিক্ষণ ঢাকা করতে পারতাম। কিন্ত খরচ কমিয়ে জনগনের দোরগোড়ায় এসে প্রশিক্ষনের ব্যবস্থা করা হয়েছে। শিক্ষকদের বেশি করে প্রশিক্ষণ দিতে হবে। কারণ শিক্ষার্থীদের সাথে শিক্ষকদের সম্পর্ক বেশি।
কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর এসএম ইবাদুল হকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক মোস্তাফিজুর রহমান। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন কলেজের শিক্ষক পরিষদের সম্পাদক সোলজার রহমান, প্রশিক্ষানার্থী মেজর মোখলেছ উদ্দিন। আলোচনা শেষে ৬৫জন প্রশিক্ষণার্থীর হাতে সনদ তুলে দেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি।
অপরদিকে সরকারি মহিলা কলেজে ৭০ জন প্রশিক্ষণার্থীর মধ্যে সনদ বিতরণ করেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের সচিব নজরুল ইসলাম খান। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মোসাম্মৎ ফাতেমা খাতুন। বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক মোস্তাফিজুর রহমান। ২৭ অক্টোবর লানিং এন্ড আনিং প্রশিক্ষণ কর্মসূচি শুরু হয়। গতকাল সনদপত্র বিতরণের মধ্যদিয়ে ৫ দিনের প্রশিক্ষণ শেষ হয়েছে।

শেয়ার