সুন্দরবনে র‌্যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে বাহিনী প্রধান মর্তুজসহ নিহত ২

sundorbon
শরণখোলা (বাগেরহাট) প্রতিনিধি॥ বাগেরহাটের মংলার পূর্ব সুন্দরবনের শেলা নদীতে বুধবার সকালে বনদস্যু মর্তুজা বাহিনী ও র‌্যাবের বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটেছে। এতে বাহিনী প্রধান গোলাম মর্তুজা ও সেকেন্ড-ইন-কমান্ড মোশারফ গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত হয়েছেন। ৩৫ মিনিটের বন্দুকযুদ্ধে উভয়পে ৩ শতাধিক গুলি বিনিময় হয়েছে বলে জানা গেছে। বন্দুকযুদ্ধ শেষ হলেও এলাকায় তল্লাশি চালাচ্ছে র‌্যাব।
এদিকে, ঘটনাস্থল থেকে দেশি ও বিদেশি ১৫টি আগ্নেয়াস্ত্র, ৫টি ধারালো অস্ত্র, ৩৯ রাউন্ড তাজা গুলি ও ১৯ হাজার ৬৭২ টাকা উদ্ধার করা হয়েছে। তবে কী ধরনের অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে, তা জানা যায়নি।
এ বিষয়ে র‌্যাব-৮ এর সিও লে. কর্নেল ফরিদুল আলম জানান, বুধবার সকালে বনের শেলা নদীতে র‌্যাব-৮ এর নিয়মিত টহলকালে নদী সংলগ্ন বনের মধ্যে দস্যুদের আনাগোনা ও কথাবার্তার শব্দ শুনে র‌্যাব সদস্যরা বনের ভেতর প্রবেশ করে। এ সময় বনদস্যু মর্তুজা বাহিনী র‌্যাব সদস্যদের দেখামাত্রই গুলি ছুড়লে র‌্যাবও পাল্টা গুলি চালায়। সকাল ৭টা ৫০ মিনিট থেকে শুরু হওয়া বন্দুকযুদ্ধ চলে ৮টা ২৫ মিনিট পর্যন্ত। এ সময় উভয়পরে মধ্যে প্রায় ৩৩৫ রাউন্ড গুলি বিনিময় হয়েছে বলেও জানিয়েছে র‌্যাব।
ফরিদুল আলম জানান, বন্দুকযুদ্ধের এক পর্যায়ে বাহিনী প্রধান মর্তুজা ও সেকেন্ড-ইন-কমান্ড মোশারফ গুলিবিদ্ধ হয়ে ঘটনাস্থলেই নিহত হয়। এ সময় বাহিনীর অন্য সদস্যরা বনের ভেতরে পালিয়ে যায়। পরে ঘটনাস্থল থেকে র‌্যাব সদস্যরা দেশি ও বিদেশি ১৫টি আগ্নেয়াস্ত্র, ৫টি ধারালো অস্ত্র, ৩৯ রাউন্ড তাজা গুলি এবং ১৯ হাজার ৬৭২ টাকা উদ্ধার করে।
মংলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমিনুল ইসলাম জানান, নিহতদের লাশ র‌্যাবের কাছ থেকে গ্রহণ করার পর বাগেরহাট মর্গে পাঠানো হবে। নিহত দস্যু মর্তুজা ও মোশারফের বাড়ি মংলার জয়মনির ঘোল এলাকায়।

শেয়ার