মাগুরায় এমপি আকবারের বাসভবনে ককটেল হামলা শহরে ভাংচুর-অগ্নিসংযোগ॥ পুলিশের গুলি ও টিয়ার সেল নিক্ষেপ

Magura
মাগুরা প্রতিনিধি॥ বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির চেয়ারম্যান ও মাগুরা জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর ডা. সিরাজুল ইসরাম এমপির বাস ভবনে শনিবার সন্ধ্যায় ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে দুবৃত্তরা। এসময় এমপি আকবর বাসায় থাকলেও কোন হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। এদিকে, শহরে অতিরিক্ত র‌্যাব মোতায়েন করা হয়েছে। রাতের মধ্যে বিজিবি মোতায়েন করা হবে বলে সহকারী পুলিশ সুপার সাহেব আলী পাঠান নিশ্চিত করেছেন। এদিন মাগুরায় গুড়ি গুড়ি বৃষ্টির ভিতরেও সারা শহরে পাল্টা-পাল্টি মহড়া দিয়েছে ছাত্রলীগ ও ছাত্রদল। এসময় উভয় সংগঠন বোমা বিস্ফোরণ ঘটিয়ে ছাত্রলীগ-বিএনপি কার্যালয় ভাংচুর এবং অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটে। এতে করে গোটা শহরে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। মানুষের মধ্যে এক প্রকার ভীতির সঞ্চয় হয়।
তিনদিনের হরতালের পক্ষে বিএনপি ও হরতাল বিরোধী ছাত্রলীগ শহরে বিক্ষোভ মিছিল বের করে। শনিবার বেলা ১২টার দিকে ছাত্রলীগ বিক্ষোভ মিছিল বের করে শহরের ভায়নার মোড়ে পৌছলে স্থানীয় বিএনপি কর্মীরা ককটেল বিস্ফোরণ ঘটায়। এ সময় সেখানে ছাত্রদলের সঙ্গে ছাত্রলীগের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া হয়। পরে ছাত্রদলের কর্মীদের সঙ্গে পুলিশের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার কিছুক্ষণের মধ্যে সারা শহরে সংঘর্ষ ছড়িয়ে পড়ে। আওয়ামী লীগ ও বিএনপি কর্মীরা গোটা শহরে বোমার বিস্ফোরণ এবং ভাংচুর চালিয়ে নিজেদের ক্ষমতা প্রদর্শণের চেষ্টা চালায়। এতে অন্তত শতাধিক দোকান পাট ক্ষতিগ্রস্ত হয়। ভাংচুরের শিকার হয়েছে শহরের রাজ টাওয়ার, অরো ডেন্টাল কিনিকসহ শতাধিক বেসরকারি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। এছাড়া শহরের ঢাকা রোড বাসস্ট্যান্ড এলাকায় বিক্ষুব্ধ বিএনপি কর্মীরা ছাত্রলীগ সভাপতি রেজাউল ইসলামের ব্যবহৃত একটি পালসার মোটর সাইকেলে অগ্নিসংযোগ করে। সংঘর্ষ চলাকালে রথি, শাহিনসহ ১০ জন আহত হয়েছে। পুলিশ শহরের পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে শতাধিক রাউন্ড গুলি ও কাঁদানে গ্যাস নিক্ষেপ করে।
সহকারী পুলিশ সুপার সাহেব আলী পাঠান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেছেন, শহরে গুরুত্বপূর্ণ স্থানে পুলিশের টহল জোরদার করা হয়েছে। শহরে বর্তমানে শান্ত রয়েছে। রাতের মধ্যে শহরে বিজিবি মোতায়েন করা হবে।

শেয়ার