সাতক্ষীরা জুড়ে ১৮ দলের অরাজকতা বোমা বিস্ফোরণ॥ ভাংচুর ১৪৪ ধারা বলবৎ

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি॥ সাতক্ষীরায় কদমতলায় শুক্রবার সকালে বিােভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে ১৮ দলের নেতা কর্মীরা। পৌরসভা এলাকায় বৃহস্পতিবার রাত থেকেই ১৪৪ ধারা বলবৎ থাকায় তারা শহরের অদুরে কদমতলা বাজারে বিােভ মিছিল ও সমাবেশ করে।
সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, জেলা বিএনপির স্থগিতকৃত কমিটির সাধারন সম্পাদক এড. সৈয়দ ইফতেখার আলী, সদর থানা জামায়াতের সেক্রেটারী মাওলানা শাহাদাত হোসেন, এড.আবুবকর সিদ্দিকী, শিবির নেতা আমিনুর রহমান প্রমুখ। কদমতলা বাজারে সমাবেশ চলাকালিন সময়ে মুখোমুখি অবস্থানে ছিল ১৮ দলের নেতাকর্মী ও আইনশৃঙ্খলা রাকারী বাহিনীর সদস্যরা। পাশাপাশি কদমতলা বাজার থেকে সমাবেশ শেষে ফেরার পথে জামায়াত শিবিরের সমার্থকরা সদর উপজেলার আবাদের হাটের ব্যবসায়ী তাপসের আড়ত দোকানের শাটার ভেঙ্গে পাটের বস্তা বের করে এনে রাস্তায় জ্বালিয়ে দিয়েছে। একই মালিকের আরও একটি দোকানে ভাংচুর করার খবর পাওয়া গেছে।
এছাড়া শহরের বাঁকাল, কালিগঞ্জের নলতা ও দেবহাটার সখিপুরে বিােভ সমাবেশ করেছে জামায়াত-শিবিরের কর্মীরা। নলতায় দু’টি ককটেল বিস্ফোরন ও একটি ট্রাক ভাংচুর করার খবর পাওয়া গেছে। পাশাপাশি স্বাস্থ্য মন্ত্রী ডা. আ ফ ম রুহুল হকের শুভেচ্ছা ব্যানার ও ফেস্টুন ভেঙ্গে দিয়েছে জামায়াত-শিবির।
এদিকে শ্যামনগরের কাশিমাড়িতে জামায়াত শিবির মিছিল ও সমাবেশ করেছে। সেখানে সমাবেশ চলাকালিন সময়ে এক জামায়াত সমার্থক কর্মীর মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। নিহতের নাম শফিকুল ইসলাম সে ওই গ্রামের আমজাদ আলীর ছেলে। অন্যদিকে সাতীরা পৌরসভা এলাকায় বৃহস্পতিবার রাত ১২ টা থেকে জারি করা ১৪৪ ধারা বলবৎ রয়েছে। আইনশৃঙ্খলা রার্থে মোতায়েন করা হয়েছে ১০ প্লাটুন বিজিবি, ১০ প্লাটুন র‌্যাব ও বিপুল সংখ্যক পুলিশ।
সাতীরা পুলিশ সুপার মোল্যা জাহাঙ্গীর হোসেন জানান, শহরে জামায়াত শিবির কোনো সমাবেশ করতে পারেনি। কয়েকটি উপজেলার বিভিন্ন স্থানে জামায়াত-শিবির শান্তিপূর্ন সমাবেশ করে ফিরে গেছে। যে কোনো পরিস্থিতি মোকাবেলা করতে পুলিশ, বিজিবি ও র‌্যাবকে সর্বোচ্চ সতর্কতায় রাখা হয়েছে।

শেয়ার