সংসদ অধিবেশন চলবে ৭ নভেম্বর পর্যন্ত

Bang Parlament
সমাজের কথা ডেস্ক॥ নির্বাচনের আগে রাজনৈতিক উত্তাপের মধ্যে সংসদের চলতি অধিবেশন ৭ নভেম্বর পর্যন্ত চালানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে কার্য উপদেষ্টা কমিটি।
সংসদের মুলতবি অধিবেশন শুরুর ঘণ্টা খানেক আগে আগে বুধবার বিকালে স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে কমিটির বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত হয়েছে।

সংসদ নেতা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বৈঠকে ছিলেন। তবে বিরোধীদলীয় নেতা খালেদা জিয়া এই বৈঠকে ছিলেন না।

সংসদ সচিবালয়ের জনসংযোগ বিভাগের পরিচালক জয়নাল আবেদীন সাংবাদিকদের বলেছেন, “ বৈঠকে ১৯তম অধিবেশন আগামী ৭ নভেম্বর পর্যন্ত চালানোর সিদ্ধান্ত হয়েছে। এরপর তা আর বাড়বে কি না, সে বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে স্পিকারকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।”

সংসদ বর্জন করে আসা বিরোধী দলের প্রধান হুইপ জয়নুল আবদিন ফারুক ইতোমধ্যে জানিয়েছেন, কার্য উপদেষ্টা কমিটির সিদ্ধান্ত দেখে তারা পরবর্তী পদপে নেবেন।

বিরোধীদলীয় নেতা খালেদা জিয়ার সঙ্গে সংসদ সদস্যদের বৈঠকের পর মঙ্গলবার রাতে তিনি সাংবাদিকদের একথা জানান।

সংসদ সচিবালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, কার্য উপদেষ্টা কমিটিতে দুটি বেসরকারি বিল পাস করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। বিল দুটি হল- জাতীয় পার্টির মুজিবুল হক চুন্নু উত্থাপিত পিতা-মাতার ভরণপোষণ বিল এবং আওয়ামী লীগের সাবের হোসেন চৌধুরী উত্থাপিত নির্যাতন ও হেফাজতে মৃত্যু (নিবারণ) বিল।

কমিটির সদস্য ডেপুটি স্পিকার শওকত আলী, সংসদ উপনেতা সৈয়দা সাজেদা চৌধুরী, প্রধান হুইপ মো. আব্দুস শহীদ, সুরঞ্জিত সেন গুপ্ত, শেখ ফজলুল করিম সেলিম, তোফায়েল আহমেদ, মো. ফজলে রাব্বী মিয়া, এম রহমত আলী, রাশেদ খান মেনন ও আব্দুল মতিন খসরু বৈঠকে অংশ নেন।

আইনমন্ত্রী শফিক আহমেদ বিশেষ আমন্ত্রণে কার্য উপদেষ্টা কমিটির এই বৈঠকে যোগ দেন।

টানা ১৩ দিন মুলতবির পর বিকাল সাড়ে ৪টায় বসেছে সংসদের এই অধিবেশন। গত ৯ অক্টোবর অধিবেশন মুলতবি করেন স্পিকার।

বিরোধী দলের অনুপস্থিতিতে গত ১২ সেপ্টেম্বর ১৯তম অধিবেশন শুরু হয়। ওই দিন কার্য উপদেষ্টা কমিটি আগামী ২৪ অক্টোবর পর্যন্ত অধিবেশন চালানোর সিদ্ধান্ত নেয়।

এরপর দিন থেকে দশম সংসদ নির্বাচনের দিন গণনা শুরু হবে। সংবিধানের পঞ্চদশ সংশোধনের ফলে ২৫ অক্টোবর থেকে ২৪ জানুয়ারির মধ্যে এই নির্বাচন হবে।

আওয়ামী লীকে মতায় রেখে নির্বাচনের বিরোধী বিএনপি ২৫ অক্টোবর থেকে সরকার পতন আন্দোলনের হুমকি দিলে মহাজোটের জ্যেষ্ঠ কয়েকজন সংসদ সদস্য ২৪ অক্টোবরের পরও অধিবেশন চালানোর দাবি তোলেন।

এরপর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ২৪ অক্টোবরের পরও সংসদের অধিবেশন চলবে।

শেয়ার