যশোরাঞ্চলে পেঁয়াজ বীজের বরাদ্দ বাতিল করে কোম্পানির কাছে বিক্রি করায় ফুঁসে উঠেছে ডিলাররা

Badc jessore
নিজস্ব প্রতিবেদক॥ প্রচলিত বিধি ভঙ্গ করে যশোরাঞ্চলে বিএডিসি’র উৎপাদিত পেঁয়াজ বীজ ডিলারদের না দিয়ে একটি কোম্পানির কাছে বিক্রি করার অভিযোগ উঠেছে। এর ফলে একদিকে বিএডিসির ডিলাররা বঞ্চিত হচ্ছে অন্যদিকে এবার চড়া দামে পেঁয়াজ বীজ কিনতে হবে কৃষকদের। বিএডিসি সূত্র মতে, প্রতি বছর বিএসিডির উৎপাদিত পেঁয়াজ বীজ দাম নির্ধারণ করে ডিলারদের কাছে বিক্রি করা হয়। কৃষকরা সুলভ মূল্যে ওই বীজ ক্রয় করে চাষাবাদ করেন। প্রচলিত নিয়ম অনুযায়ী বৃহত্তর যশোরের ৪টি জেলা যশোর। ঝিনাইদহ, নড়াইল, মাগুরার ৩৮৬জন ডিলারের এবার বীজ বরাদ্দ ছিল ৩ মেট্রিকটন। চলতি মাসের প্রথম সপ্তাহে ওই বীজ বরাদ্দ দেয়ার জন্য কেজি প্রতি ৪৫টাকা দাম নির্ধারণ করে সার্কুলার দেয়া হয়। এর এক সপ্তাহ পর ১৫টাকা দাম বৃদ্ধি করে ৬০টাকা নির্ধারণ করা হয়। কিন্তু সম্প্রতি বিএডিসির এজিএম’র দপ্তর থেকে সারা দেশের বরাদ্দ আদেশ বাতিল করে একটি বেসরকারি বীজ বিক্রেতা প্রতিষ্ঠানের কাছে সমুদয় বীজ বিক্রির হঠকারী সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। একই সাথে ওই কোম্পানিকে পাবনায় ১০টন, ফরিদপুরে ১৫ ও ঢাকা জেলায় ২০ মেট্রিক টন বীজ বিক্রির অনুমতি দেয়া হয়। এর ফলে বিএডিসির বৃহত্তর যশোরের ডিলাররা ব্যাপক ুব্ধ হন। তারা গতকাল বিএডিসি যশোরের যুগ্ম পরিচালকের কার্যালয়ে গিয়ে ব্যাপক ুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন। ডিলাররা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের হঠকারী সিদ্ধান্ত বাতিল করে পূর্বের মতো বরাদ্দ দাবি করেন।
এদিকে, ডিলারদের বীজ বরাদ্দ বাতিল হওয়ায় কৃষকদের মাঝেও অসন্তোষ সৃষ্টি হয়েছে। কৃষকদের অভিযোগ ডিলারদের কাছ থেকে তারা ন্যার্য মূল্যে বীজ কিনতে পারলেও কোম্পানির কাছ থেকে তাদের বীজ কিনতে হবে চড়া দামে। তারপরে কোথায় বীজ পাওয়া যাবে কিংবা বীজ সিন্ডিকেটের হাতে চলে যায় কি না তা নিয়েও সংশয় প্রকাশ করেছেন কৃষকরা।

শেয়ার