মরেও বেঁচে গেলেন!

Iran
সমাজের কথা ডেস্ক॥ মৃত্যুদণ্ডে দণ্ডিত হয়ে ১২ মিনিট ফাঁসির দড়িতে ঝুলে ছিলেন তিনি। ডাক্তার তাকে মৃতও ঘোষণা করে। কিন্তু মর্গে বেঁচে উঠলেন।
ঘটনাটি ঘটেছে ইরানে। আর এর পরিপ্রেক্ষিতে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল তাকে দ্বিতীয়বার ফাঁসিতে না ঝোলানোর আহ্বান জানিয়েছে।

দেশটির আইনমন্ত্রী মোস্তফা পোওরমোহাম্মাদিও জানিয়েছেন, আলিরেজা নামে ৩৭ বছর বয়সী ওই মাদক চোরাকারবারীকে দ্বিতীয়বার ঝোলানোর কোনো প্রয়োজন নেই। এতে ইরানের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হবে বলে আইনমন্ত্রীর বরাত দিয়ে বিবিসি জানিয়েছে।

ইরানে বিচার বিভাগের ওপর অর্থাৎ আদালতের ওপর সরকারের সরাসরি কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই। তাই ওই ব্যক্তিকে দ্বিতীয়বার ফাঁসিতে ঝোলানো হবে কি না সেটি আদালতেই নির্ধারিত হবে।

বিশ্বে যেসব দেশে সর্বাধিক মৃত্যুদণ্ড কার্যকর হয় ইরান তাদের অন্যতম।

গত সপ্তায় ইরানের উত্তরপূর্বাঞ্চলীয় বোজনর্ড শহরের কারাগারে আলিরেজার ফাঁসি কার্যকর হয়। ১২ মিনিট ফাঁসিররজ্জুতে ঝুলে থাকার পর কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করে।

কিন্তু পরদিন আলিরেজার পরিবার তার মরদেহ নেওয়ার জন্য মর্গে গিয়ে দেখতে পায় তিনি শ্বাস নিচ্ছেন।

পরবর্তীসময়ে আলিরেজাকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে তিনি সশস্ত্র প্রহরায় রয়েছেন।

তার সর্বশেষ অবস্থা এখনো জানা যায়নি। তবে সোমবার দেশটির ইরনা সংবাদ সংস্থা জানিয়েছে, আলিরেজা কোমায় চলে গেছেন।

শেয়ার