‘চিন্তা’ করবেন না: সিইসি

EC
সমাজের কথা ডেস্ক॥ সংসদ অধিবেশন চললেও তা নির্বাচনের তফসিল ঘোষণায় কোনো প্রভাব ফেলবে না বলে জানিয়েছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার কাজী রকিবউদ্দীন আহমদ।
দশম সংসদ নির্বাচনের দিন গণনা শুরুর একদিন আগে বৃহস্পতিবার কমিশন সচিবালয়ে তিনি সাংবাদিকদের একথা জানান।
নির্বাচন পদ্ধতি নিয়ে দুই প্রধান দলের পাল্টাপাল্টি প্রস্তাবের মধ্যে সংসদের চলতি অধিবেশনের মেয়াদ আগামী ৭ নভেম্বর পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে, যা নির্বাচনের দিন গণনা শুরুর আগের দিন ২৪ অক্টোবর শেষ হওয়ার কথা ছিল।
অধিবেশনের মেয়াদ আরো বাড়লে তা নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার ক্ষেত্রে প্রভাব ফেলবে কি না- জানতে চাইলে সিইসি বলেন “যদি-টদি নিয়ে চিন্তা করবেন না। ঠিক সময়ে তফসিল ঘোষণা করা হবে।”
সংবিধান অনুযায়ী ২৫ অক্টোবর থেকে ২৪ জানুয়ারির মধ্যে আগামী সংসদ নির্বাচন হবে। প্রচারসহ আনুষঙ্গিক কাজের জন্য ৪৫ দিন সময় দিয়ে তফসিল ঘোষণার কথা বলে আসছে ইসি।
সিইসি বলেন, “এনাফ টাইম দেব আমরা, যাতে কারো কোনো অসুবিধা না হয়, সময়ের শর্টেজ না হয়।”
তবে তফসিল ঘোষণার সময় সংসদ অধিবেশন যে থাকবে না, তার ইঙ্গিতও দেন কাজী রকিব।
সংবিধানের পঞ্চদশ সংশোধনের পর আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকা অবস্থায়, সংসদ বহাল রেখে আগামী সাধারণ নির্বাচন হবে।
দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন সুষ্ঠু হবে না দাবি করে নির্বাচনকালীন নির্দলীয় সরকার চেয়ে আসছে বিরোধী দল।
তাদের দাবির প্রতিক্রিয়ায় সংবিধানের মধ্যে থেকে নির্বাচনকালীন সর্বদলীয় সরকারের প্রস্তাব দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
ওই প্রস্তাব গ্রহণ না করে বিরোধীদলীয় নেতা পাল্টা প্রস্তাবে নির্দলীয় সরকারের রূপরেখা দেন।
দুই দলের পাল্টাপাল্টি অবস্থান নিয়ে দেশের মানুষের মধ্যে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা থাকলেও সম্প্রতি দুই প্রধান দলের সাধারণ সম্পাদক ও ভারপ্রাপ্ত মহাসচিবের টেলিসংলাপে আলোচনার আশাও করা হচ্ছে।

শেয়ার