গাছে টাকা না ধরলেও সোনা ধরে!

tree
সমাজের কথা ডেস্ক॥ টাকা কি গাছে ধরে? এ প্রশ্নের উত্তর সব সময় নেতিবাচক হলেও গাছে যে সোনা ধরে তার প্রমাণ পেয়েছেন বিজ্ঞানীরা।

ইউক্যালিপ্টাস প্রজাতির গাছের পাতায় স্বর্ণের কণার উপস্থিতির প্রমাণ পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছেন অস্ট্রেলিয়ার একদল গবেষক।
গবেষণাটি নেচার কমিউনিকেশন নামের একটি সাময়িকীতে প্রকাশিত হয়েছে।

অস্ট্রেলিয়ার কমনওয়েলথ সায়েন্টিফিক অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিয়াল রিসার্চ অরগাইজেশনের গবেষক মেল লিনটার্ন বলেন, ‘অস্ট্রেলিয়াসহ আরও কিছু অঞ্চলে ইউক্যালিপ্টাস প্রজাতির গাছের আশেপাশের মাটিতে সোনার উপকরণ পাওয়া যায়। গাছ মাটিতে থাকা সোনার যৌগ খনিজ পদার্থ হিসেবে শুষে নেয়, যা গাছের পাতায় সোনার কণার উপস্থিতি প্রমাণ করে। ’

গবেষকরা একটি বিশেষ ধরনের এক্স-রে মেশিন ব্যবহারের মাধ্যমে কিছু কিছু গাছের পাতা, কাণ্ড ও বাকলে সোনার উপস্থিতি পেয়েছেন।

গবেষকরা আরও জানান, প্রাপ্ত সোনার পরিমাণ খুবই কম এবং তা খালি চোখে দেখা যায় না। হিসাব করে দেখা গেছে, গাছে সোনার পরিমাণ এতই কম যে, বিয়ের একটি সোনার আংটি বানানোর জন্য প্রায় পাঁচশো গাছের প্রয়োজন হবে।

গবেষক মেল লিনটার্ন আরও বলেন, পাতা থেকে সোনা সংগ্রহের জন্য গাছ একটি হাউড্রোলিক পাম্পের মতো কাজ করে। যেখানে গাছ মাটি থেকে জীবন রক্ষার জন্য পানি শোষণ করে এবং পানির সঙ্গে দ্রবীভূত সোনা পাতায় সংরক্ষণ করে। আর এটি মাটির অনেক গভীর থেকে। ইউক্যালিপ্টাস প্রজাতির গাছ মাটির অনেক গভীর থেকে পানি শোষণে সক্ষম বলে এ ধরনের গাছেই স্বর্ণের উপস্থিতি সম্ভব।

শেয়ার