নিজেকে নিলামে তুলে চাকরি পেলেন ড্যান

dadi
সমাজের কথা ডেস্ক॥ চাকরি পেয়েছেন ড্যান কনওয়ে। এখন তিনি হৈমন্তির স্বামী অপূর্বের মতো বলতে পারেন, ‘আমি পাইলাম, ইহাকে পাইলাম।’ চাকরির জন্য কী না করেছেন তিনি! সে যা যা করেছে তা অনেকটা পাগলামির পর্যায়েই পড়ে। ইবে ওয়েবসাইটে নিজেকে নিলামে পর্যন্ত তুলে দিয়েছিল সে। আর এতেই কাজ হয়। এক আন্তর্জাতিক কোম্পানিতে মার্কেটিং এক্সিকিউটিভ হিসেবে সম্প্রতি কাজ পেয়েছেন যুক্তরাজ্যের নর্থ টাইনেসাইডের বাসিন্দা ড্যান।

ভিটামিনস ডাইরেক্ট নামে এক আন্তর্জাতিক কোম্পানি ড্যানকে এ চাকরি দিয়েছে। সে বাসায় বসেই কাজ করতে পারবে। তবে মাঝে মধ্যে তাকে ফ্লোরিডায় কোম্পানির প্রধান কার্যালয়ে সফর করতে হবে। চাকরি পাওয়ার পর ড্যান বলেন, ‘এটি আমার ও আমার পরিবারকে নতুন জীবন দিয়েছে। গত এক বছর ধরে আমি একটা চাকরির জন্য চেষ্টা করে আসছিলাম। শেষমেষ এর দেখা পেলাম আমি। আশা করছি এ চাকরি আমাদের জীবন বদলে দেবে।’

চাকরির জন্য গত এক বছর ধরে নানাভাবে চেষ্টা করে আসছিল ২৮ বছরের ড্যান। ইন্টারনেটে ছবি আর পোস্টারসমেত বিজ্ঞাপন পর্যন্ত দিয়েছেন। কিন্তু কিছুতেই কিছু হয়নি।

গত বছর দ্বিতীয় সন্তান জন্ম হওয়ার মাত্র এক সপ্তাহ পর চাকরি হারান ড্যান। এরপর চাকরির জন্য কয়েক শ’ আবেদন করেছিলেন তিনি। কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয় থেকে গ্রাজুয়েট করা ড্যানিকে কেউ ডাকেনি। দু’সন্তানের জনক ড্যান তখন চাকরি পেতে দ্য এক্সট্রিম জব হান্টার ওয়েবসাইটের শরণাপন্ন হন। তাদের ওয়েবসাইটটির প্রচারণার কাজে যুক্ত হন। তখন জব হান্টার ওয়েবসাইটের বিলবোর্ড কাঁধে ঝুলিয়ে নিউক্যাসলের রাস্তা ধরে হাঁটতেন সারাদিন ধরে।

এক সময় তিন বছরের মেয়ে লুসিকেও তার চাকরি ভিক্ষায় যুক্ত করেন। মেয়েকে নিয়ে ভিডিও বানিয়ে পোস্ট করেন ইন্টারনেটে। তাতে লেখা ছিল,‘দয়া করে আমার বাবাকে একটি কাজ দিন।’.

বিজ্ঞাপণ জগত বা সোস্যাল মিডিয়ায় কেরিয়ার গড়ার স্বপ্ন দেখতেন ড্যানি। তাইতো বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সর্বোচ্চ ডিগ্রি নেয়ার পরও বিজ্ঞাপনের ওপর গ্রাজুয়েট করেন। কিন্তু তার স্বপ্ন স্বপ্নই থেকে যায়। কোথাও কাজ জোটে না তার। সন্তানদের প্রাত্যাহিক প্রয়োজন মেটাতে তাই একটি স্কুলে পার্টটাইম কাজ নেন। কিন্তু গত জুনে ওই চাকরি থেকেও বাদ দেয়া হয় তাকে। এরপর শুরু হয় চাকরি খোঁজা। তখন তিনি চাকরির জন্য অনেক কোম্পানির কর্মকর্তাদের ঘুষ হিসেবে ডোনাট আর পিৎজা পাঠাতেন। এ সময় চাকরি দিলে আইপড দেয়ারও প্রতিশ্রুতি দেন তিনি। কিন্তু কোনো কিচুতেই তার কাজ জুটছিল না। উপায় না দেখে এক সময় ড্যানি বেতন ছাড়া চাকরি করারও প্রস্তাব দেন।

গত এক মাস আগে ড্যানি যখন চাকরির আশা একপ্রকার ছেড়েই দিয়েছেন তখনই বিটামিন ডাইরেক্ট তাকে চাকরির প্রস্তাব দেয়। প্রস্তাবটি সঙ্গে সঙ্গেই লুফে নেন ড্যানি। এখানে তাকে কোম্পনির প্রচারণার কাজই করতে হবে।

শেয়ার