টাকার বিছানায় শোয়ার স্বপ্ন পূরণ

Taka
সমাজের কথা ডেস্ক॥ লক্ষ টাকার নোটের বিছানায় শুয়ে দীর্ঘদিনের লালিত স্বপ্ন পূরণ করেছেন ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের ক্ষমতাসীন দলের এক নেতা।
এ ঘটনায় নিজেকে অপরাপর দলীয় সদস্যদের মতো ‘ভণ্ড’ না বলেও দাবি করেছেন তিনি।
ত্রিপুরার ‘কমিউনিস্ট পার্টি অব ইন্ডিয়া (মার্কসিস্ট)’-সিপিআই(এম) নেতা সমর আচার্যকে বিছানায় লক্ষ লক্ষ টাকার নোটের বান্ডিলের ওপর শুয়ে থাকতে দেখা গেছে স্থানীয় একটি টেলিভিশন ফুটেজে।
সমর আচার্য সদর ডুকলি বিভাগের যোগেন্দ্রনগর এলাকার সিপিএম বিভাগীয় কমিটির সদস্য এবং পেশায় আবাসন ব্যবসায়ী।
বৃহস্পতিবারের ওই টেলিভিশন ফুটেজে তার মাথায় এমনকি বুকের ওপরও টাকার বান্ডিল দেখা গেছে।
‘ফুটেজে’ তাকে বলতে শোনা যায়, “ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে ২০ লাখ রুপি তুলেছি। টাকার বিছানায় শুয়ে থাকার স্বপ্ন দেখতাম। এবার তা পূর্ণ হল। আমি পার্টির অন্য সদস্যদের মতো নই, যারা সামনে ভালোমানুষ সাজলেও আসলে প্রচুর অর্থসম্পদের মালিক।”
দলীয় নেতার এই মন্তব্যে বিব্রত ত্রিপুরার সিপিএম নেতৃত্ব। দলের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করা এবং অনৈতিকভাবে অর্থ উপার্জনের জন্য দল থেকে এরই মধ্যে বহিষ্কারও করা হয়েছে আচার্যকে।
সিপিআই (এম) এর রাজ্য কমিটির সম্পাদক বিজন ধর রোববার পিটিআইকে বলেন, ঘটনার প্রাথমিক তদন্তে দেখা গেছে, আচার্য নিজেই নিজের মোবাইল ফোনে টাকার বিছানায় শোয়ার চিত্র ধারণ করেন। পরে তার এক বন্ধুর মাধ্যম দিয়ে তা টিভি চ্যানেলে প্রকাশ পায়।
বেসরকারি সংগঠনের সঙ্গে যুক্ত থাকার কারণে আচার্য বহু টাকা উপার্জন করে থাকতে পারেন জানিয়ে বিজন ধর বলেন, “এ কাজ দলের নীতি বিরুদ্ধ”।

স্থানীয় বিভাগীয় কমিটির প্রাথমিক তদন্তে অভিযোগের সত্যতা মিলেছে বলে জানা গেছে দলীয় সূত্রে।

বিভাগীয় কমিটি এ বিষয়ে রাজ্য কমিটির কাছে রিপোর্ট পাঠানোর পর আচার্যের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ঘটনাটিকে কেন্দ্র করে বিরোধী কংগ্রেস সদস্য রতন আল নাথ মার্ক্সসবাদী নেতা আচার্যর স্থাবর-অস্থাবর সব সম্পত্তির পুঙ্খানুপুঙ্খ তদন্ত দাবি করেছেন।
এক মন্তব্যে তিনি বলেন, “এ ঘটনা প্রমাণ করে দল দুর্নীতিবাজ এবং এর নেতারা সরকারি তহবিল তছরুপ করে বিপুল অঙ্কের অর্থসম্পদ বানাচ্ছে।”

শেয়ার