ইসলামী ব্যাংক কালীগঞ্জ শাখা প্রহরীকে হত্যা ও টাকা লুটের ঘটনায় মামলা

নয়ন খন্দকার, কালীগঞ্জ॥ ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে ইসলামী ব্যাংকের নৈশ প্রহরীকে হত্যা করে ৭৪ লাখ টাকা লুটের ঘটনায় কালীগঞ্জ থানায় মামলা হয়েছে। ব্যাংকের ম্যানেজার মাহমুদ হাসান বাদী হয়ে শনিবার সকালে মামলাটি দায়ের করেন। পুলিশ লুটকৃত টাকার কোন হদিস ও দুর্বৃত্তদের আটক করতে পারেনি। এদিকে, ঘটনার পর থেকেই ব্যাংকের ৩য় তলার ভাড়াটিয়া অফিসের লোকজনদের কোন হদিসও মিলছেনা। শুক্রবার শহরের মেইন বাসস্টান্ডে ইসলামী ব্যাংকের মধ্যে নৈশ প্রহরী আয়ুব হোসেন খুন ও ব্যাংকের ভোল্ট ভেঙ্গে ৭৪ লাখ টাকা লুটের ঘটনা ঘটে।
কালীগঞ্জ থানার অফিসার্স ইনচার্জ লিয়াকত হোসেন জানান, ইসলামী ব্যাংকে প্রহরী খুন ও ৭৪ টাকা লুটের ঘটনায় ব্যাংক ম্যানেজার মাহমুদ হাসান থানায় একটি মামলা করেছেন। ব্যাংকের ৩য় তলার বিসমিল্লাহ কনজুমার বাংলাদেশ লিমিটেডের অফিসের নামে ভাড়া নেওয়া দুর্বৃর্ত্তরা এ ঘটনা ঘটিয়েছেন বলে প্রাথমিকভাবে নিশ্চিত হয়েছেন। ওসি আরো জানান, ব্যাংক ভবনের মালিক তাদের জানিয়েছে, গত ২৯ সেপ্টেম্বর ওই কোম্পানিকে, ৩য় তলার একটি রুম মাসিক ১৬ হাজার টাকা ভাড়ায় দিয়েছিল। তারা ঈদের পর ঘরের মালিকানা ডিড করবে বলে চলে য়ায়। কিন্তু আগেই ঘরে উঠে দুর্বৃত্ত চক্রটি পরিকল্পিতভাবে ব্যাংক লুটের ঘটনা ঘটিয়ে পালিয়ে যায়। পুলিশ দুর্বত্তদের গ্রেফতারে জোর চেষ্টা চালাচ্ছে।
খুনের শিকার নৈশ প্রহরী যশোর জেলার রাজারহাট এলাকার কচুয়া গ্রামের বাবু শেখের ছেলে আয়ুব হোসেন সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত সৈনিক ছিলেন। তিনি দীর্ঘ ১৪ বছর ধরে ইসলামী ব্যাংকের বিভিন্ন শাখা ও সর্বশেষ ইসলামী ব্যাংক শাখায় নৈশ প্রহরীর হিসাবে কর্মরত ছিলেন।

শেয়ার