ঈদের দিনও সারাদেশে বৃষ্টির শঙ্কা

Weather
সমাজের কথা ডেস্ক॥
ঘূর্ণিঝড় ‘পাইলিন’ ও মৌসুমী বায়ুর প্রভাবে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে ভারী বর্ষণ অব্যাহত রয়েছে। বিশেষত রাজশাহী-রংপুর বিভাগে প্রবল বৃষ্টিপাত হচ্ছে।

ঈদের দিনও রাজধানীতে হালকা থেকে মাঝারি এবং রাজশাহী-রংপুর বিভাগে ভারী বর্ষণের পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া অধিদফতর।

জিলহজ মাসের ১০ তারিখ বুধবার বাংলাদেশে পবিত্র ঈদ-উল আজহা উদযাপিত হবে।

আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড় পাইলিন ভারতের বিহার ও তৎসংলগ্ন এলাকায় নিম্নচাপ হিসেবে উত্তর-উত্তরপূর্ব দিকে সরে এসে বর্তমানে বিহারের দক্ষিণাংশে ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থান করছে।

এর বর্ধিতাংশের একটি উত্তর-পশ্চিম বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। মৌসুমী বায়ু বাংলাদেশের ওপর মোটামুটি সক্রিয় এবং উত্তর বঙ্গোপসাগরের অন্যখানে হালকা থেকে মাঝারি অবস্থায় রয়েছে।

মঙ্গলবার সকাল নয়টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, রাজশাহী, রংপুর ও খুলনা বিভাগের অনেক জায়গায় এবং ঢাকা, বরিশাল, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় অস্থায়ী দমকা হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে।

আর রাজশাহী ও রংপুর বিভাগের কোথাও কোথাও মাঝারি থেকে ভারী বর্ষণের সম্ভাবনা রয়েছে।

আবহাওয়া অধিদফতরের কর্তব্যরত ফোরকাস্টিং অফিসার আব্দুর রহমান মঙ্গলবার দুপুরে বাংলানিউজকে বলেন, ‘বুধবার রংপুর বিভাগে ভারী বর্ষণ অব্যাহত থাকবে। এছাড়াও আশেপাশের এলাকায় বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে।’

পরবর্তী ৭২ ঘণ্টার মধ্যে আবহাওয়ার পরিবর্তন হতে পারে বলে জানায় আবহাওয়া অফিস।

এদিকে, ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে মঙ্গলবার সকাল ছয়টা পর্যন্ত রংপুর বিভাগ ও তৎসংলগ্ন এলাকায় ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টি হয়েছে।

এর মধ্যে সৈয়দপুরে সর্বোচ্চ ২৬৬ মিলি, দিনাজপুরে ১৯৪ মিলি, রংপুরে ১৬০ মিলি, ঈশ্বরদীতে ১৯ মিলি, রাজশাহীতে ১৮ মিলি, বগুড়া ও খুলনায় ১৫ মিলি করে বৃষ্টিপাত হয়েছে। এছাড়া বৃষ্টি হয়েছে চুয়াডাঙ্গা, যশোর ও সাতক্ষীরায়।

অতিবৃষ্টির ফলে গত ২৪ ঘণ্টায় দেশের রংপুর বিভাগে তাপমাত্রা কমেছে। সকাল পর্যন্ত সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে সৈয়দপুরে ২০ ডিগ্রি, দিনাজপুরে ২০ দশমিক ৫ ও রংপুরে ২০ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

বিপরীতে রাঙামাটিতে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৩ দশমিক ২ ও ঢাকায় ৩৩ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করেছে আবহাওয়া অধিদফতর।

ধর্মীয় রীতি অনুযায়ী, ঈদ-উল আজহার দিন পশু কোরবানি দেবেন সামর্থ্যবানরা। আবহাওয়াবিদরা ঈদের দিন বৃষ্টি থেকে রক্ষা পেতে বাড়তি সতর্কতার পরামর্শ দিয়েছেন।

ঈদের প্রধান জামাত হাইকোর্ট সংলগ্ন জাতীয় ঈদগাহ ময়দানে সকাল সাড়ে ৮টায় অনুষ্ঠিত হবে। আবহাওয়া প্রতিকূলে থাকলে জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমে সকাল নয়টায় জামাত অনুষ্ঠিত হবে বলে জানিয়েছে তথ্য অধিদফতর।

শেয়ার