মহা ধুমধামে নবমী উদযাপন॥ আজ বিসর্জন

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ ‘নবমী নিশি যেন আর না পোহায়, তোকে পাবার ইচ্ছা মাগো কভু না ফুরায়, রাত পোহালেই জানি আবার হবে দশমীর ভোর, আবার তোকে পাবো মোরা একটি বছর পর’ এমনই মনোকামনায় রোববার মহানবমী পালন করেছে হিন্দু সম্প্রদায়। কারণ আজই মর্ত্য ছেড়ে কৈলাশে স্বামী গৃহে ফিরে যাবেন দুর্গতিনাশী দেবী দুর্গা। আর পেছনে ফেলে রেখে যাবেন ভক্তদের চারদিনের আনন্দ উল্লাস আর বিজয়াদিনের অশ্রু। চন্দ্রের নবম তিথিতে যশোরের পূজা মন্ডপগুলোতে অনুষ্ঠিত হয়েছে মহা নবমী পূজা। পূর্বাহ্ন ৯-৫৭-১২ মধ্যে দেবীর মহানবমী কল্পারম্ভ ও বিহিত পূজা শুরু হয়। শাস্ত্র অনুযায়ী শাপলা, শালুক ও পশু বলিদানের মাধ্যমে দেবীর পূজা অনুষ্ঠিত হয়। নানা আচারের মধ্য দিয়ে মহানবমী পূজা শেষে যথারীতি ছিল অঞ্জলি নিবেদন ও প্রসাদ বিতরণ।
বিদায়ের সুরে দেবীকে দর্শনে শেষ মুহূর্তে মন্ডপগুলোতে ভক্তদের পদচারনায় মুখরিত ছিল। দেবী দর্শনের জন্য ভক্তরা স্বপরিবারে মন্ডপ গুলোতে ঘুরে ঘুরে উৎসবের আনন্দ উপভোগ করে। মূলত নবমীর মধ্য দিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে শেষ হয়েছে দেবীর পূজা। তবে বিজয়া দশমীর দিনেও বেশ কিছু আনুষ্ঠিকতা থাকে। সোমবার বিজয়া দশমীতে দুর্গাদেবীর দশমী বিহিত পূজা সমাপন ও দর্পণ বিসর্জন অনুষ্ঠিত হবে। আজ প্রতিমা বিসর্জনের মধ্যদিয়ে শেষ হবে শারদীয় দুর্গোৎসব।

শেয়ার