লায়নস অব ডেলোস

ভাস্কর্য কারুশিল্পের একটি অনন্য শাখা। সাধারণত কাদামাটি, সিরামিক, বিভিন্ন রকম ধাতু, কাঠ, পাথর খোদাইয়ের মাধ্যমে ভাস্কর্য নির্মাণ করা হয়। তবে আধুনিক ভাস্কর্যগুলো তৈরিতে নতুন নতুন উপকরণ ও পদ্ধতি সংযোজন হচ্ছে। বর্তমানে ওয়েল্ডিং ও ঢালাইয়ের পদ্ধতিও ব্যবহার করা হচ্ছে।
ভাস্কর্য কারুশিল্পের একটি অনন্য শাখা। সাধারণত কাদামাটি, সিরামিক, বিভিন্ন রকম ধাতু, কাঠ, পাথর খোদাইয়ের মাধ্যমে ভাস্কর্য নির্মাণ করা হয়। তবে আধুনিক ভাস্কর্যগুলো তৈরিতে নতুন নতুন উপকরণ ও পদ্ধতি সংযোজন হচ্ছে। বর্তমানে ওয়েল্ডিং ও ঢালাইয়ের পদ্ধতিও ব্যবহার করা হচ্ছে।

গ্রিসের ডেলোস দ্বীপ উল্লেখযোগ্য পৌরাণিক, ঐতিহাসিক ও প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন হিসেবে খ্যাত। গ্রিক পুরাণ অনুসারে এটি গ্রিক দেবতা অ্যাপোলো ও আর্টিমিসের জন্মস্থান। এখানকার সিংহের ভাস্কর্যগুলো খ্রিস্টপূর্ব ৬০০ অব্দে নির্মিত। নেক্সাসের মানুষ এগুলোকে অ্যাপোলোর উদ্দেশ্যে উৎসর্গ করেছে।
এখানে মার্বেলের তৈরি ৯ থেকে ১২টি সিংহ প্রধান পথের অভিমুখে রাখা ছিল। এগুলোর মধ্যে ৫টি এখনো সুরক্ষিত। তিনটির ভগ্নাংশ পড়ে আছে। এছাড়া আবহাওয়ার কারণে ক্ষয়প্রাপ্ত হওয়া ভাস্কর্যগুলো ১৯৯৯ সালে ডেলোসের প্রত্নতাত্ত্বিক জাদুঘরে সংরক্ষিত হয়।

শেয়ার