মুক্তচিন্তার জন্য মালালাকে পুরস্কার

তালেবান হামলা থেকে বেঁচে যাওয়া পাকিস্তানি কিশোরী ও নারী শিক্ষা আন্দোলনকর্মী মালালা ইউসুফজাই এ বছর ইউরোপীয় ইউনিয়নের শাখারভ মানবাধিকার পুরস্কার পেয়েছেন।
তালেবান হামলা থেকে বেঁচে যাওয়া পাকিস্তানি কিশোরী ও নারী শিক্ষা আন্দোলনকর্মী মালালা ইউসুফজাই এ বছর ইউরোপীয় ইউনিয়নের শাখারভ মানবাধিকার পুরস্কার পেয়েছেন।

মুক্তচিন্তার জন্য মালালাকে বৃহস্পতিবার এ সম্মাননা দেয় ইউরোপীয় পার্লামেন্ট।

যুক্তরাষ্ট্রের আড়িপাতার গোপন তথ্য ফাঁস করে দেয়া সাবেক সিঅাইএ কর্মকর্তা এডওয়ার্ড স্নোডেনকে টপকে মালালা এ পুরস্কার পেলেন।

সোভিয়েত বিজ্ঞানী ও ভিন্নমতাবলম্বী আন্দ্রেই শাখারভের সম্মানার্থে ১৯৮৮ সাল থেকে প্রতিবছরই মুক্ত চিন্তার মানুষদের শাখারভ পুরস্কার দিয়ে আসছে ইউরোপীয় পার্লামেন্ট।

এর আগে দক্ষিণ আফ্রিকার বর্ণবাদ বিরোধী অবিসংবাদিত নেতা নেলসন ম্যান্ডেলা এবং মিয়ানমারের গণতান্ত্রিক আন্দোলনের নেত্রী অং সান সু চি এ পুরস্কার পান।

এবার ৭৫০ সদস্যের ইউরোপীয় পার্লামেন্টের সব রাজনৈতিক দলের প্রধানদের ভোটে জয়ী হওয়ার পর মালালাকে এ পুরস্কার দেয়ার জন্য বেছে নেয়া হয়।

“সবার জন্য শিক্ষা”, বিশ্বব্যাপী এই বার্তা ছড়িয়ে দেয়া ১৬ বছরের মালালা এ বছর নোবেল শান্তি পুরস্কার পেতে পারেন বলেও শোনা যাচ্ছে।
আগামী শুক্রবার ওই পুরস্কারের বিজয়ীর নাম ঘোষণা করা হবে। সম্ভাব্য বিজয়ী হিসেবে জোরেশোরে উচ্চারিত হচ্ছে মালালার নাম।

এক বছর আগে ৯ অক্টোবর পাকিস্তানের তালেবান বন্দুকধারীরা মামালাকে হত্যার জন্য তার স্কুলবাসে হামলা চালায়। মাথায় গুলিবিদ্ধ মারাত্মক আহত মালালা সৌভাগ্যক্রমে বেঁচে যান।

চিকিৎসা শেষে সেরে ওঠার পর তিনি বিশ্বের সব শিশুদের শিক্ষার অধিকার আদায়ের প্রতীকে পরিণত হন। বালক, বালিকা সবার শিক্ষা নিশ্চিত করার আন্দোলনের বৈশ্বিক রাষ্ট্রদূত হয়ে ওঠেন তিনি।

শেয়ার