১৮ই জুলাই ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৩রা শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
ম্যাচ শেষে ডেভিড লুইজকে শান্তনা দেন ক্লোসা।
ব্রাজিলের ৭-১ ট্র্যাজেডির এক দশক

ক্রীড়া ডেস্ক : ৮ জুলাই। এই তারিখটা ক্ষত হয়ে থাকবে ব্রাজিলের ফুটবলে। নিজেরা ভুলে যেতে চাইলেও প্রতিপক্ষ দলের সমর্থকরা ঠিকই মনে করিয়ে দেন। কি হয়েছিল এদিন? ২০১৪ বিশ্বকাপ সেমিফাইনালে এই দিনেই জার্মানি ৭-১ গোলে বিধ্বস্ত করেছিল ব্রাজিলকে।

সেই ১৯৫০ বিশ্বকাপে ফাইনালে পরিণত হওয়া শেষ ম্যাচে মারাকানায় উরুগুয়ের কাছে হেরে স্বপ্ন ভেঙেছিল ব্রাজিলের। অনেক ফুটবল বিশ্লেষকের মতে তার চেয়ে বেশি ট্র্যাজেডির জার্মানির কাছে বেলে হোরিজেন্তোয় ৭-১ গোলে হারটা। সেই ম্যাচের ১০ বছর পূর্তি হল আজ।
একদিন আগে অর্থাৎ ৭ জুলাই, ২০২৪ কোপা আমেরিকার কোয়ার্টার ফাইনালে উরুগুয়ের কাছে হেরে বিদায় নিয়েছে ব্রাজিল। সেই কষ্ট ভোলার আগেই ব্রাজিল সমর্থকদের সামনে এলো ৭-১ এর দুঃসহ স্মৃতির এক দশক পূর্তির ক্ষণ।
ব্রাজিলের ৭-১ গোলের ট্র্যাজেডির ১০ বছর পেরিয়ে গেলেও এই দেশে এখনো ভক্তদের শুনতে হয় 'সেভেন আপ' শব্দটি।

সেই ম্যাচে একটি করে গোল করেছিলেন টমাস মুলার, মিলোস্লাম ক্লোসা, সামি খাদিরা। জোড়া গোল করেন টনি ক্রুস ও আন্দ্রে শুর্লে।

ব্রাজিলিয়ান দৈনিক গ্লোবো ম্যাচটার স্মৃতি নিয়ে মুখোমুখি হয়েছিল তখনকার জার্মান কোচ জোয়াকিম লো এর।
লো বলেন, 'ঘরের মাঠে সেমিফাইনাল খেলাটা সবসময় চাপের। ব্রাজিলও চাপে ছিল। আমি সেই বিশ্বকাপের কথা প্রতিদিনই স্মরণ করি, কারণ এটা বিশেষ অভিজ্ঞতা ছিল। ব্রাজিলের মতো ঐতিহ্যবাহি দেশে বিশ্বকাপ জেতাটা বিশেষ কিছু। ব্রাজিলের জাতীয় সঙ্গীত বাজার পর থেকে দর্শকরা আবেগি হয়ে পড়েছিল। প্রথম কয়েক মিনিট ব্রাজিলই ভালো খেলেছে। কিন্তু প্রথম ১০ মিানিটে গোল পেয়ে গেলাম আমনা (১১ মিনিটে করেছিলেন মুলার)। এটা আমাদের আত্মবিশ্বাস বাড়িয়ে দেয়।'

ম্যাচের প্রথম ৩০ মিনিটেই ব্রাজিল পিছিয়ে পরে ৫-০ গোলে। লো বলেন, 'প্রথম গোলের পর ক্লোসা ব্যবধান দ্বিগুণ করল ২৫ মিনিটের আগে। সেই গোলের পর স্তম্ভিত হয়ে যায় ব্রাজিল। গ্যালারির পরিবেশ বদলে যায়। ব্রাজিলিয়ান ‍ফুটবলাররা বুঝতে পারছিল না কি হচ্ছে। পরের তিনটা গোল হয়ে গেল এভাবেই।'

বিরতির সময় জার্মানির ড্রেসিংরুমে নাকি বলা হয়েছিল, ঘরের মাঠে ব্রাজিলকে আর বেশি গোল দেওয়ার দরকার নেই। এমন গুঞ্জন উড়িয়ে দিলেন লো, 'এটা বাজে কথা। বরং আমি মনে করিয়ে দিয়েছিলাম বাছাইপর্বে সুইডেনের কাছে শুরুতে ৪ গোল দিয়ে শেষ ৩০ মিনিট ৪ গোল হজম করার কথা। ফুটবলে যে কোনও কিছু ঘটতে পারে। তবে খারাপ লাগছিল ব্রাজিলের জন্য।'

ওই ২০১৪ বিশ্বকাপেই আর্জেন্টিনাকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল জার্মানি। তবে লো ক্যারিয়ারে স্মরণীয় স্মৃতিই মনে করেন ব্রাজিলকে হারানো ম্যাচটি, 'একটা জরিপে বেশ কিছুদিন আগে জানানো হয়েছে, ব্রাজিলকে ৭-১ গোলে হারানোটাই জার্মানির সর্বকালের সেরা (আমারও তাই মনে হয়)। এরপর আসবে ২০১৪ সালের ফাইনালে আর্জেন্টিনাকে ফাইনালে হারিয়ে শিরোপা জয়। এই দুটো ম্যাচ নিয়ে এতোদিন পরও কথা হয় জার্মানিতে।'

সম্পাদক ও প্রকাশক : শাহীন চাকলাদার  |  ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আমিনুর রহমান মামুন।
১৩৬, গোহাটা রোড, লোহাপট্টি, যশোর।
ফোন : বার্তা বিভাগ : ০১৭১১-১৮২০২১, ০২৪৭৭৭৬৬৪২৭, ০১৭১২-৬১১৭০৭, বিজ্ঞাপন : ০১৭১১-১৮৬৫৪৩
Email : samajerkatha@gmail.com
পুরাতন খবর
FriSatSunMonTueWedThu
 1234
567891011
12131415161718
19202122232425
262728293031 
স্বত্ব © samajerkatha :- ২০২০-২০২২
crossmenu linkedin facebook pinterest youtube rss twitter instagram facebook-blank rss-blank linkedin-blank pinterest youtube twitter instagram