২০শে জুলাই ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৫ই শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
স্বাস্থ্যসেবায় নতুন অধ্যায় ‘বৈকালিক চেম্বার’
‘বৈকালিক চেম্বার’ স্বাস্থ্যসেবায় নতুন অধ্যায়

মোতাহার হোসেন, মণিরামপুর ও এস আর সাঈদ, কেশবপুর : ২২ মাস বয়সি শিশু আরশী রহমান জ্বরসহ ঠান্ডা কাশিতে আক্রান্ত। তাকে নিয়ে মণিরামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের বৈকালিক চেম্বারে এসেছিলেন উপজেলার দত্তকোনা গ্রামের বাসিন্দা তানিয়া রহমান। গ্রাম্য ডাক্তারের কাছ থেকে পাঁচদিন ওষুধ খাইয়েও কোনো কাজ হয়নি তার।

বৃহস্পতিবার বৈকালিক চেম্বারে আরশীর চিকিৎসা সেবা প্রদান করেন জুনিয়র কনসালটেন্ট (পেডিয়াট্রিক) ডা. জেসমিন সুমাইয়া। বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের চিকিৎসা পেয়ে ভীষণ খুশি তানিয়া। বললেন, মাত্র তিনশ টাকা ফি দিয়ে বাড়ির পাশেই ভাল ডাক্তার দেখাতে পারছি। এই ডাক্তার দেখাতে জেলা সদরে যেতে হলে এক হাজার টাকার বেশি খরচ হয়ে যেতো।

বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে তিনটার দিকে যশোরের মণিরামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এই বৈকালিক চেম্বারের উদ্বোধন অনুষ্ঠিত হয়। যশোরের মণিরামপুর ও কেশবপুর এই দু’টি উপজেলাতে এই স্বাস্থ্যসেবা কার্যক্রম চালু হয়েছে। সরকারি হাসপাতালে বৈকালিক এই চেম্বারের মাধ্যমে চিকিৎসাসেবায় এক নতুন অধ্যায়ের সূচনা হলো।
মণিরামপুরে উদ্বোধনের পরই মেয়ে আরশীর জন্য বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের স্বাস্থ্যসেবা গ্রহণ করেন তানিয়া রহমান ও আনিছুর রহমান দম্পতি।

তারা জানান, তাদের বাড়ি উপজেলার প্রত্যন্ত দত্তকোণা গ্রামে। এই সময় বাইরের কোন ক্লিনিক কিংবা ডায়াগনস্টিক সেন্টারে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের কাছে গেলে কমপক্ষে ৫শ’ টাকা পরামর্শ ফি দিতে হতো। তার উপর জেলা শহরে যেতে যাতায়াত ভাড়াতো থাকলো। সময়ও লাগতো বেশি। সব মিলিয়ে এ ধরনের উদ্যোগে সাধারণ মানুষ উপকৃত হবে।

মণিরামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আরেকটি কক্ষে বৈকালিক চেম্বার করেন ডা. রঘুরাম চন্দ্র। তার কাছে পরামর্শ নিতে আসেন উপজেলার পাঁচকাটিয়া গ্রামের রূপা মন্ডল। তিনি কয়েকদিন ধরে শ^াসকষ্টে ভুগছেন। মাত্র দুইশ’ টাকা পরামর্শ ফিতে স্বাস্থ্যসেবা নিতে পেরে তিনিও বেজায় খুশি।

সংশ্লিষ্টরা জানান, সরকারের পাইলট প্রজেক্টের আওতায় যশোরের দু’টি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চালু হলো এই বৈকালিক স্বাস্থ্যসেবা। বৃহস্পতিবার স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক ভার্চুয়ালি উদ্বোধনের পর মণিরামপুর ও কেশবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এই সেবা চালু করা হয়। সরকার নির্ধারিত ফি দিয়ে রোগীরা এখন বিকালে উপজেলা হাসপাতাল থেকে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের স্বাস্থ্যসেবা গ্রহণ করতে পারবেন বলে জানিয়েছেন সিভিল সার্জন ডা. বিপ্লব কান্তি বিশ্বাস।

বৃহস্পতিবার বিকেলে মণিরামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে বৈকালিক স্বাস্থ্য সেবার উদ্বোধন করেন খুলনা বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. মো. মনজুরুল মুরশিদ। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, যশোরের সিভিল সার্জন ডা. বিপ্লব কান্তি বিশ্বাস, ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা. নাজমুস সাদিক রাসেল, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জাকির হোসেন, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. তন্ময় বিশ্বাস, সহকারী পুলিশ সুপার আশেক সুজা মামুন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান উত্তম চক্রবর্তী বাচ্চু, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান কাজী জলি আক্তার, মণিরামপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি ফারুক আহাম্মেদ লিটন, সিভিল সার্জন অফিসের মেডিকেল অফিসার ডা. রেহেনেওয়াজ, ডা. অনুপম দাস প্রমুখ।

যশোরের সিভিল সার্জন ডা. বিপ্লব কান্তি বিশ্বাস বলেন, সর্বোচ্চ স্বাস্থ্যসেবা প্রত্যন্ত অঞ্চলের মানুষের দোরগোড়ায় নিতে সরকার এই বৈকালিক চেম্বার পাইলট প্রকল্প হিসেবে গ্রহণ করেছে। যশোরে দু’টি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এ সেবা চালু করা হলো। এর মাধ্যমে নির্ধারিত ফি দিয়ে গ্রামের মানুষ বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের স্বাস্থ্যসেবা গ্রহণ করতে পারবেন। রোগীকে আর জেলা শহর পর্যন্ত ছুটতে হবে না। স্বল্প খরচে দ্রুত সময়ে চিকিৎসা সেবা পাওয়ায় সাধারণ মানুষ অনেক উপকৃত হবেন।

কেশবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপে¬ক্সেও বৈকালিক স্বাস্থ্যসেবা কার্যক্রম শুরু হয়েছে। উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা অফিসার ডা. আলমগীর হোসেনের সভাপতিত্বে উদ্বোধন করেন প্রধান অতিথি উপজেলা নির্বাহী অফিসার এম এম আরাফাত হোসেন। বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান নাসিমা সাদেক ও কেশবপুর উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি এস আর সাঈদ। অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মেডিকেল অফিসার সমরেশ কুমার দত্ত, মেডিকেল অফিসার সৌমেন বিশ্বাস, স্বাস্থ্য কমপে¬ক্সের স্বাস্থ্য পরিদর্শক আমিনুল ইসলাম প্রমুখ।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা অফিসার ডা. আলমগীর হোসেন জানান, সরকার নির্ধারিত ফি’র বিনিময়ে আজ থেকে সপ্তাহে দুই দিন চিকিৎসকরা বৈকালিক চেম্বারে বিকাল ৩টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত রোগী দেখবেন। তবে বৈকালিক স্বাস্থ্যসেবা নিতে আসা রোগীরা স্বাস্থ্য কমপে¬ক্সের কোন সরকারি ওষুধ পাবেন না।

তিনি সরকারের এই উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়ে আরো বলেন, বৈকালিক স্বাস্থ্যসেবার কারণে যত্রতত্র গড়ে ওঠা ডায়াগনস্টিক সেন্টার ও ক্লিনিকের দৌরাত্ম্য কমবে। স্বাস্থ্যসেবা সাধারণ মানুষের নাগালের মধ্যে থাকবে। উদ্বোধনের পূর্বে যশোর জেলা সিভিল সার্জন ডাক্তার বিপ¬ব কান্তি বিশ্বাসের নেতৃত্বে একটি টিম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের বৈকালিক চেম্বার পরিদর্শন করেন।

এদিন দেশের ১২টি জেলা সদর হাসপাতাল এবং ৩৯টি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চালু হয়েছে বৈকালিক স্বাস্থ্যসেবা। এতে চিকিৎসকরা নির্ধারিত সময়ের পর নির্দিষ্ট ফি নিয়ে রোগী দেখতে পারবেন।

সম্পাদক ও প্রকাশক : শাহীন চাকলাদার  |  ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আমিনুর রহমান মামুন।
১৩৬, গোহাটা রোড, লোহাপট্টি, যশোর।
ফোন : বার্তা বিভাগ : ০১৭১১-১৮২০২১, ০২৪৭৭৭৬৬৪২৭, ০১৭১২-৬১১৭০৭, বিজ্ঞাপন : ০১৭১১-১৮৬৫৪৩
Email : samajerkatha@gmail.com
পুরাতন খবর
FriSatSunMonTueWedThu
 1234
567891011
12131415161718
19202122232425
262728293031 
স্বত্ব © samajerkatha :- ২০২০-২০২২
crossmenu linkedin facebook pinterest youtube rss twitter instagram facebook-blank rss-blank linkedin-blank pinterest youtube twitter instagram