২০শে জুন ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৬ই আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
পানিবন্দি পাইকগাছার ১৫ গ্রামের মানুষ
পানিবন্দি পাইকগাছার ১৫ গ্রামের মানুষ

মোঃ আব্দুল আজিজ, পাইকগাছা, খুলনা : ঘূর্ণিঝড় রেমাল আঘাত হানার তিন দিন অতিবাহিত হলেও পাইকগাছার দেলুটী ইউনিয়নের দুটি পোল্ডারের ড়্গতিগ্র¯ত্ম বাঁধ এখনো মেরামত করা সম্ভব হয়নি। ফলে পানি বন্দি হয়ে মানবেতর জীবন-যাপন করছে ১৫ গ্রামের ১৫ হাজার মানুষ।

 

গত ২৬ মে রোববার রাতে উপকূলীয় এ জনপদে আঘাত হানে ঘূর্ণিঝড় রেমাল। রেমালের আঘাতে লন্ডভন্ড হয়ে যায় পাইকগাছা উপজেলার বিভিন্ন পোল্ডারের পানি উন্নয়ন বোর্ডের ওয়াপদার বেড়িবাঁধ। ১০টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভার কমপড়্গে ৩০ স্থানে বাঁধ ভেঙ্গে পোল্ডারে লবণ পানি প্রবেশ করে। ভাঙ্গনে সবচেয়ে ড়্গতিগ্র¯ত্ম হয় উপজেলার সোলাদানা ও দেলুটী ইউনিয়ন। ইতোমধ্যে অন্যান্য ইউনিয়নের ড়্গতিগ্র¯ত্ম বাঁধ প্রাথমিক মেরামত করা হলেও দেলুটী ইউনিয়নের দুটি পোল্ডারের দুটি বাঁধ এখানো মেরামত করা সম্ভব হয়নি।

ঘূর্ণিঝড় রেমালের আঘাতে অন্যান্য স্থানের ন্যায় বাঁধের অনেকটা জায়গা জুড়ে ভেঙ্গে যায় ২২নং পোল্ডারের তেলিখালী ঘাট সংলগ্ন ওয়াপদার বেড়িবাঁধ। বাঁধ ভেঙ্গে এই পোল্ডারের ৫টি ওয়ার্ডের ১২ গ্রামের প্রায় ১৫ হাজার মানুষ পানি বন্দি হয়ে পড়ে। কৃষি অধ্যুষিত ২২ পোল্ডারের মানুষ সর্বস্বাšত্ম হয়ে যায়। আশে পাশে সবখানে লবণ পানির মাছ চাষ হলেও ২২ নং পোল্ডারটি দীর্ঘদিন লবণ পানি মুক্ত। এখানকার মানুষ সম্পূর্ণ কৃষির উপর নির্ভরশীল। এখানে ধান, মিষ্টি পানির মাছ, গবাদি পশু ও বিভিন্ন ধরণের ফলদএবং বনজ গাছ পালায় ভরপুর। বছরে এই পোল্ডারে প্রায় ১শ কোটি টাকার তরমুজ বিক্রি হয়। এখানকার সবজি বিভিন্ন স্থানে সরবরাহ হয়।

গত ৩ দিনেও তেলিখালী এলাকার বাঁধ মেরামত করতে না পারায় প্রতিদিন জোয়ার-ভাটার পানিতে ভাসছে ২২নং পোল্ডার। পানি বন্দি হয়ে মানবেতর জীবন-যাপন করছেন এখানকার নারী, শিশু সহ বিভিন্ন বয়সের মানুষ। অনেকেই পানি বন্দি হয়ে বসতবাড়িতে রয়েছেন, অনেকেই আবার ঠাই নিয়েছেন ওয়াপদার বেড়িবাঁধে। অনেকেই আবার বসত বাড়িতে থাকতে না পেরে পরিবার পরিজন ও মালামাল নিয়ে চলে যাচ্ছেন অন্যত্র। একইভাবে দেলুটী ইউনিয়নের ২০ এবং ২০ এর ১নং পোল্ডারের ৩টি স্থানে বাঁধ ভেঙ্গে যায়। ইতোমধ্যে দুটি স্থানে প্রাথমিক মেরামত করা গেলেও ড়্গতিগ্র¯ত্ম চকরি-বরকি প্রতিরড়্গা বাঁধ মেরামত করা সম্ভব হয়নি। ফলে এখানকার গেওয়াবুনিয়া, পারমধুখালী ও দীঘলিয়াসহ ৩টি গ্রামের আংশিক এলাকার মানুষ এখনো পানি বন্দি হয়ে রয়েছে।

এ ব্যাপারে দেলুটী ইউপি চেয়ারম্যান রিপন কুমার মন্ডল বলেন, ঘূর্ণিঝড় রেমালের আঘাতে ইউনিয়নের অসংখ্য স্থানে বাঁধ ভেঙ্গে যায়। উপজেলা প্রশাসনের দিকনির্দেশনায় পানি উন্নয়ন বোর্ড ও স্থানীয় জনসাধারণের ঐকাšিত্মক প্রচেষ্টায় ইতোমধ্যে বেশিরভাগ বাঁধ প্রাথমিক মেরামত করা সম্ভব হয়েছে। তবে তেলিখালী ও চকরি-বকরি প্রতিরড়্গা বাঁধ মেরামত করা সম্ভব হয়নি। স্কেভেটর দিয়ে চেষ্টা করা হচ্ছে। আশা করছি দ্রম্নত সময়ের মধ্যে ড়্গতিগ্র¯ত্ম বাঁধের প্রাথমিক মেরামত করা সম্ভব হবে।

 

সম্পাদক ও প্রকাশক : শাহীন চাকলাদার  |  ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আমিনুর রহমান মামুন।
১৩৬, গোহাটা রোড, লোহাপট্টি, যশোর।
ফোন : বার্তা বিভাগ : ০১৭১১-১৮২০২১, ০২৪৭৭৭৬৬৪২৭, ০১৭১২-৬১১৭০৭, বিজ্ঞাপন : ০১৭১১-১৮৬৫৪৩
Email : samajerkatha@gmail.com
পুরাতন খবর
FriSatSunMonTueWedThu
 123456
78910111213
14151617181920
21222324252627
282930 
স্বত্ব © samajerkatha :- ২০২০-২০২২
crossmenu linkedin facebook pinterest youtube rss twitter instagram facebook-blank rss-blank linkedin-blank pinterest youtube twitter instagram