মাগুরা ও কালিগঞ্জে তিন মাদক ব্যবসায়ীর গুলিবিদ্ধ লাশ

সাতক্ষীরা, কালিগঞ্জ ও মাগুরা প্রতিনিধি
মাগুরা ও সাতক্ষীরার কালিগঞ্জ থেকে তিন ‘মাদক ব্যবসায়ীর’ গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।
মাগুরা শহরতলীর পারনান্দুয়ারী হাউজিং প্রজেক্ট এলাকা থেকে বুধবার রাতে আইয়ুব শেখ ও মিজানুর রহমান কালু নামে দুইজনের গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধারের কথা জানিয়েছে পুলিশ।
আর সাতক্ষীরার কালিগঞ্জ উপজেলার ভাড়াশিমলা ইউনিয়নের চৌবাড়িয়া গ্রামের সিদ্ধের পুকুর নামক স্থান থেকে বৃহস্পতিবার সকালে মাদক ব্যবসায়ী আব্দুল আজিজের (৪৫) লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে একটি দেশী তৈরী পিস্তল, পাঁচ রাউন্ড গুলি ও ৪৮ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার করে।
মাগুরা শহরতলীর পারনান্দুয়ারী হাউজিং প্রজেক্ট এলাকা থেকে বুধবার রাতে আইয়ুব শেখ ও মিজানুর রহমান কালু নামে দুইজনের গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।
মাগুরার সহকারী পুলিশ সুপার (সদর) সার্কেল ছয়েরউদ্দিন বলছেন, ‘মাদক চোরাকারবারিদের দুইপক্ষের গোলাগুলিতে’ ওই দুইজন নিহত হয়েছে বলে ধারণা করছেন তারা।
আইয়ুব শেখের নামে হত্যা ও মাদক অইনে ২১টি এবং কালুর বিরুদ্ধে ১৮টি মামলা রয়েছে বলে জানান এই পুলিশ কর্মকর্তা। আইয়ুব শহরতলীর নীজনান্দুয়ালী এলাকার জব্বার শেখের ছেলে। আর কালু শহরের ভায়না টিটিডিসি পাড়া এলাকার আব্দুল বারীর ছেলে।
সহকারী পুলিশ সুপার বলেন, রাত দেড়টার দিকে হাউজিং প্রজেক্ট এলাকায় গোলাগুলির খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে দুইজনকে রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে। তাদের মাগুরা সদর হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন।
হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক ডা. পরীক্ষিত পাল বলেন, “হাসপাতালে আনার আগেই দুইজনের মৃত্যু হয়।” পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ৫০০ গ্রাম হেরোইন, তিনটি রাইফেলের গুলি ও ছয়টি বন্দুকের গুলির খোসা উদ্ধার করেছে বলে জানান ছয়েরউদ্দিন।
এদিকে, সাতক্ষীরার কালিগঞ্জ উপজেলার ভাড়াশিমলা ইউনিয়নের চৌবাড়িয়া গ্রামের সিদ্ধের পুকুর নামক স্থান থেকে বৃহস্পতিবার সকালে এক মাদক ব্যবসায়ির লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে একটি দেশী তৈরী পিস্তল, পাঁচ রাউন্ড গুলি ও ৪৮ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার করে। নিহত আব্দুল আজিজ (৪৫) সদর উপজেলার পরানদহ গ্রামের কেরামত আলির ছেলে।
ভাড়াশিমলা ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য পিয়ার আলী জানান, বৃহস্পতিবার ভোরে চৌবাড়িয়া গ্রামের সিদ্ধের পুকুর নামকস্থানে পাকা রাস্তার পাশে গুলিবিদ্ধ এক ব্যক্তিকে পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয় গ্রামবাসিরা তাকে জানায়। বিষয়টি তিনি পুলিশকে অবহিত করলে সকাল সাতটার দিকে কালিগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ হাসান হাফিজুর রহমান, ওসি (তদন্ত) মোহাম্মাদ রাজিব হোসেন ও উপ-পরিদর্শক নিয়াজ মোহাম্মাদ খানসহ সঙ্গীয় পুলিশ ফোর্স ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে নিহতের লাশ উদ্ধার করে। লাশের চোয়ালে ও গলায় দু’টি গুলি চিহ্ন দেখা যায়। এ সময় লাশের পাশ পড়ে থাকা অবস্থায় একটি দেশীয় তৈরি পিস্থল, পাঁচ রাউন্ড গুলি, একটি নতুন গামছা ও পলিথিনের মোড়ানো অবস্থায় ৪৮ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার করা হয়।
তবে নিহতের পারিবারের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে, বুধবার রাত ১০ টার দিকে সাতক্ষীরা সদর থানা পুলিশ তাকে আটক করে নিয়ে আসে। বৃহস্পতিবার সকালে গুলিবিদ্ধ লাশ কালিগঞ্জ থেকে উদ্ধার হয়। কালিগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হাসান হাফিজুর রহমান জানান, গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।

SHARE