স্বপ্নে ফাইনাল, ভাবনায় ভারত

সমাজের কথা ডেস্ক॥ এক ম্যাচ আগেই ড্রেসিং রুম ডুবেছিল হতাশার আঁধারে। এখন সেখানেই সম্ভাবনার আলোর ঝিলিক। উড়ে বেড়াচ্ছে স্বপ্নের রেণু। ভেসে বেড়াচ্ছে ফাইনালের আশা। তবে এখনই ডানা মেলছে না দল। বাস্তবতার উপলব্ধি আছে বলে পা থাকছে মাটিতেই। বাংলাদেশ এগোতে চায় প্রতিটি ম্যাচ ধরে।

গত কিছু দিনে বাংলাদেশ দল হারিয়ে খুঁজছিল নিজেদের। হাপিত্যেশ করছিল একটি জয়ের জন্য। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সেই কাঙ্ক্ষিত জয়ের দেখা পেয়েছে বাংলাদেশ। শুধু একটি জয়ই নয়, যেভাবে জিতেছে বাংলাদেশ, সেটিই দারুণ চনমনে করে তুলেছে মিইয়ে থাকা দলকে। এই জয়কেই এখন সামনে এগিয়ে চলার পাথেয় মানছেন মাহমুদউল্লাহ। অধিনায়কের কণ্ঠে সেই আত্মবিশ্বাসের ছোঁয়া।

“আমি সবসময়ই বলছিলাম আমাদের সামর্থ্য আছে, বিশ্বাস আছে যে, আমরা ভালো করতে পারি। শুধু মাঠে করে দেখাতে হবে। দলের জন্য, দেশের জন্য কিছু করার তাগিদ ছিল। সেটাই হয়তো সবাইকে অনুপ্রাণিত করেছে।”

“গত ম্যাচের জয়টি আমাদের আত্মবিশ্বাস অনেক বাড়িয়ে দিয়েছে। এখান থেকে হয়ত আমরা ইতিবাচক দিকগুলো নিয়ে সামনের ম্যাচগুলো খেলব।”

এই জয়ের এমন মহিমা যে জাগিয়ে দিয়েছে সুপ্ত ইচ্ছাগুলো। হারের বলয়ে থাকায় যে চাওয়াগুলো ছিল ঘুমিয়ে, সেগুলোই এখন উঁকি দিতে শুরু করেছে।

“আমরা এই সফরে আসার আগে প্রথম লক্ষ্যই ছিল যে ফাইনাল খেলতে হবে। নিজেরা বলেছিলাম যে আমরা ফাইনাল খেলতে চাই ও ফাইনাল খেলব। লক্ষ্য, যত বেশি সম্ভব ম্যাচ জেতা।”

তবে এক জয়েই যে টি-টোয়েন্টির জগতে শক্ত ভিত পেয়ে গেছে বাংলাদেশ, সেটি ভাবছেন না মাহমুদউল্লাহ। অধিনায়ক এখনও এটিকে দেখছেন হাঁটি হাঁ পা পা হিসেবে।

“এমন নয় যে আমরা অনেক কিছু করে ফেলেছি। আমাদের পা মাটিতেই আছে। এটা কেবলই একটা শুরু। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে আমাদের নিয়ে বেশ কিছু প্রশ্ন ছিল। কেবল সরানো শুরু হয়েছে, আশা করি আস্তে আস্তে আমরা সরাতে পারব। ক্রিকেটে উন্নতির জায়গা সবসময়ই আছে। সেটি নিয়েই কাজ করব আমরা।”

সামনে এগিয়ে চলার পথচলায় বাংলাদেশ এখন সামনে পাচ্ছে ভারতকে। স্বপ্নের সীমানায় ফাইনাল থাকলেও মাহমুদউল্লাহর দৃষ্টি আপাতত পরের ম্যাচটিতে।

“ভারত খুব ভালো খেলছে। টি-টোয়েন্টি সংস্করণটটিই এমন যে নির্দিষ্ট দিনে যে ভালো খেলবে, স্কিলগুলো ঠিকঠাক খেলতে পারবে, তাদেরই ফল ভালো হবে।”

SHARE