যে কারণে ওপেনিংয়ে নেমেছিলেন লিটন

সমাজের কথা ডেস্ক॥ তামিম ইকবালের সঙ্গে লিটন দাসকে দেখে বিস্মিত হয়েছিলেন অনেকেই। প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামের প্রেসবক্সে অফিসিয়াল স্কোরারও ভুল করে ফেলেছিলেন। ঘোষণা করেছিলেন, তামিমের সঙ্গে ওপেন করছেন সৌম্য সরকার। পরে শুধরে নেন। তবে সবচেয়ে বেশি অবাক হয়েছিল বুঝি লঙ্কানরা। সিদ্ধান্তটি নেওয়া হয়েছিল আসলে লঙ্কানদের চমকে দিতেই।
ম্যাচ জেতানোয় সবচেয়ে বড় কৃতিত্ব অবশ্যই মুশফিকুর রহিমের। তবে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে জয়ে পার্শ্বনায়ক হিসেবে দারুণ উজ্জ্বল দলের দুই ওপেনারও। দুজনের বিস্ফোরক শুরুটাই গড়ে দিয়েছিল বড় রান তাড়ার ভিত। দলকে জুগিয়েছিল বিশ্বাস। টি-টোয়েন্টিতে প্রথমবার দুজন একসঙ্গে ওপেন করেই গড়েছেন বাংলাদেশের সেরা ওপেনিং জুটির রেকর্ড। ৭৪ রান তুলেছিলেন ৬ ওভারেই।

তবে বড় রানের লক্ষ্য দেখে নয়, লিটনকে ওপেন করানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল ম্যাচের আগের দিনই। প্রথম ম্যাচের পরই অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ বলেছিলেন, লঙ্কানরা যেভাবে সাম্প্রতিক সময়ে খেলছে, সেই ধরনটা বুঝে পরিকল্পনা সাজাবে বাংলাদেশ। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে জয়ের পর তামিম ইকবাল জানালেন, লঙ্কানদের বোলিং আক্রমণের পরিকল্পনা অনুমান করেই ওপেনিংয়ে পরিবর্তন এনেছিল বাংলাদেশ।

“আমরা জানতাম ওরা অফ স্পিন দিয়ে বোলিং শুরু করবে। জানতাম যে আকিলা দনঞ্জয়া শুরু করবে। গুনাথিলাকাও দ্রুত আসবে। এজন্যই আমরা লিটনকে ওপেনিংয়ে তুলে আনি (ডানহাতি বলে)। ওরা সেটাই করেছে। আমাদের পরিকল্পনা কাজে লেগে গেছে, ওদেরটা লাগেনি।”

নতুন বলে দুশমন্থ চামিরার সঙ্গে শুরু করেছিলেন দনঞ্জয়াই। এই অফ স্পিনারের ৩ ওভারে ৩৬ রান নেয় বাংলাদেশ। দানুশকা গুনাথিলাকার ওভারে ২২।

দুই ওপেনারের মধ্যে তুলনামূলকভাবে বেশি আগ্রাসী ছিলেন লিটনই। ১৯ বলে ৪৩ রান করেছেন ৫ ছক্কায়। তরুণ এই ব্যাটসম্যান জানালেন, আগে থেকে জানতেন বলে মানসিক প্রস্তুতি ছিল তার। চেয়েছেন পাওয়ার প্লে কাজে লাগাতে।

“আমি আগের দিনই জানতাম যে আমি ওপেন করব। ওপেন করা আমার জন্য নতুন কিছু নয়। জাতীয় দলে হয়ত খুব একা সুযোগ পাইনি ওপেন করার। তবে আমি অভ্যস্তই ওপেনিংয়ে। জানতাম কিভাবে ব্যাট করতে হবে। সেভাবেই চেষ্টা করেছি।”

“তামিম ভাইয়ের সঙ্গে আমার কথা হয়েছিল যে পাওয়ার প্লে কাজে লাগাতে হবে। সফল যে হবই, তা তো বলা যায় না। চেয়েছি দলকে ভালো কিছু দিতে। হয়তো আমি আরও বেশি সময় থাকলে জেতাটা আরও সহজ হতো। ভুল করেছি। তার পরও জিতেছে দল, এটাই বড় কথা।”

SHARE