হাজী জমশের খান ওয়াক্ফ ট্রাস্ট সম্পত্তি জালিয়াতির ঘটনায় একজন কারাগারে

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ যশোরের কেশবপুরে প্রতারণা ও জালিয়াতি মামলায় হাজী জমশের খান ওয়াক্ফ ট্রাস্টের মোতাওয়াল্লি (তত্ত্বাবধায়ক) মশিয়ার রহমান খানকে কারাগারে প্রেরণের আদেশ দিয়েছেন আদালত। সোমবার আদালতে আত্মসমর্পণ করলে অতিরিক্ত চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মুহাম্মদ আকরাম হোসেন এ আদেশ দেন। আটক মশিয়ার রহমান একই উপজেলার মধ্যকুল গ্রামের মৃত রজব আলী খানের ছেলে।
মামলার বিবরণে জানা গেছে, হাজী জমশের খান ওয়াকফ ট্রাস্টের মোতওয়াল্লি ছিলেন আব্দুল ওয়াদুদ খান। ১৯৭৮ সালে আসামি মশিয়ার রহমান খান তাকে সরিয়ে দিয়ে নিজে মোতওয়াল্লি হন। এরই মধ্যে মশিয়ার রহমান ভুয়া কাগজপত্র তৈরি করে ওয়াকফ ট্রাস্টের জমি বিক্রি করতে থাকেন। মরহুম আব্দুল ওয়াদুদ খানের ছেলে আয়ুব খান জানতে পারেন, মশিয়ার রহমান ভুয়া কাগজপত্র তৈরি করে কয়েকটি দাগে ৪ একর ৩৩ শতক পৈত্রিক জমি হাজী জমশের খান ওয়াকফ ট্রাস্টভুক্ত করেছেন। আয়ুব খান বিষয়টি নিশ্চিত হয়ে প্রতারণা ও জালিয়াতির অভিযোগে আদালতে মামলা করেন। পরে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) তদন্ত করে আদালতে প্রতিবেদন জমা দেয়। প্রতিবেদনে মশিয়ার রহমানের জালজালিয়াতি অভিযোগ প্রাথমিকভাবে প্রমাণিত হয়। গতকাল সোমবার মামলার ধার্যদিনে মশিয়ার রহমান আদালতে আত্মসমর্পন করে জামিন আবেদন করেন। বিচারক মামলার শুনানি শেষে জামিন আবেদন না মঞ্জুর করে কারাগারে মশিয়ারকে প্রেরণের আদেশ দিয়েছেন।

SHARE