পর্যটকের ছবিতে ধরা পড়লো ভুত!

সমাজের কথা ডেস্ক॥ যুক্তরাজ্যের কেন্ট’এ অবস্থিত এইন্সফোর্ড দুর্গ পর্যটকদের কাছে অন্যতম দর্শনীয় স্থান হিসেবে বিবেচিত। আজ থেকে প্রায় হাজার বছর আগে পাথরের তৈরি দুর্গটি অ্যাঙ্গলো-স্যাক্সনরা তৈরি করেছিল বলে ঐতিহাসিকদের ধারণা।
বিভিন্ন সময়ে দুর্গটির উপর নানা আক্রমণ এলেও এখনও কালের স্বাক্ষী হয়ে টিকে রয়েছে ওই দুর্গ। পর্যটকদের কাছে জনপ্রিয় এই দুর্গটি একবিংশ শতকে যুক্তরাজ্য সরকার হেরিটেজ হিসেবে ঘোষণা করেছে।
সম্প্রতি ভৌতিক ঘটনার কারণে সংবাদের শিরোনাম হয়েছে ঐতিহাসিক এই দুর্গটি। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম ডেইলি মেইল জানায়, সম্প্রতি এক পর্যটক দুর্গটিতে ঘুরতে এসে ভৌতিক অভিজ্ঞতার মুখোমুখি হন।
অ্যাঙ্গলো-স্যাক্সনদের কীর্তি দেখতে দেখতে এর বিভিন্ন অংশের ছবি তুলছিলেন জন উইক্স নামের ওই পর্যটক। সঙ্গে তার ১২ বছরের ছেলেও ছিল। মূলত ছেলে তার স্কুলে মধ্যযুগের দুর্গ সম্পর্কে পড়াশোনা করছিল বলেই সেখানে গিয়েছিলেন উইক্স।
দুর্গের অনেক ছবি তুলেছিলেন তিনি। কিন্তু পরে সেগুলো পরীক্ষা করতে গিয়ে চোখ আটকে যায় একটি ছবিতে। দেখতে পান দুর্গের একটি সিড়ির উপর ভয়ঙ্কর কালো মুর্তি দাঁড়িয়ে রয়েছে। কিন্তু ছবিটি যখন উইক্স তোলেন তখন সেখানে কেউ ছিল না। তাহলে?
ছবিতে থাকা অদ্ভূত কালো মুর্তিটি পুরোহিত বলেই মনে হয় তার। নিশ্চিত হতে একজন অধিভৌতিক বিশেষজ্ঞের সঙ্গে তিনি সাক্ষাত করেন। ছবিটি পরীক্ষা করে সেই বিশেষজ্ঞ জানান, দুনিয়াতে অনেক ব্যাপারই রয়েছে যার কোনো ব্যাখ্যা হয় না। এই ছবির ব্যাপারটাও তেমনই !
কিন্তু এমন উত্তরে শান্তনা না পেয়ে জন দুর্গটি সম্পর্কে খোঁজ নেয়া শুরু করেন। জানতে পারেন, দুর্গটিতে কালো পোশাক পরিহিত এমন ছায়ামুর্তিকে এর আগেও দেখতে পাওয়া গেছে। কিন্তু সেটি যে আসলে কে, সে সম্পর্কে কারও কোনো ধারণা নেই।