বাগেরহাটে শ্রমিকলীগ নেতার বাড়িঘর ভাংচুর ও লুটপাট ॥ মহিলাসহ আহত ৩

বাগেরহাট প্রতিনিধি ॥ বাগেরহাট সদর উপজেলার ষাটগম্বুজ ইউনিয়নের পশ্চিম সায়েড়া গ্রামে মঙ্গলবার দুপুরে আলতাফ শেখ নামের এক শ্রমিকলীগ নেতার বসত বাড়িতে ভাংচুর ও লুটপাট করেছে প্রতিপক্ষের লোকজন। এতে বহিরাগত সন্ত্রাসীরাও অংশ নেয়। এতে আলতাফ শেখের স্ত্রী লিপি বেগম, ছেলে বাপ্পি শেখ ও শাশুড়ী জবেদা বেগম আহত হয়েছেন। ঘটনার পর খবর পেয়ে বাগেরহাট মডেল থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করলেও কাউকে আটক করতে পারেনি। তবে এ ঘটনায় বাগেরহাট মডেল থানায় ক্ষতিগ্রস্ত আলতাফ শেখ বাদি হয়ে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করা করেছেন। আলতাফ শেখ বাগেরহাট সদর উপজেলা শ্রমিকলীগের সহ-সভাপতি।
আলতাফ শেখ জানান, বাগেরহাট পানি উন্নয়ন বোর্ডের কাছ থেকে আমি পশ্চিম সায়েড়া মৌজার ২৫ শতাশং জমি ইজারা নিয়ে বসত বাড়ি নির্মাণ করে দীর্ঘদিন ধরে ভোগ দখল করে আসছি। কিন্তু মঙ্গলবার দুপুরে আমার প্রতিপক্ষ আব্দুর রশিদ শেখ, রখি শেখ, রিপন শেখ, আক্তার শেখ, সুজা শেখ গংরা বহিরাগত প্রায় শতাধিক ভাড়াটে সন্ত্রাসী বাহিনী নিয়ে আমার বসত বাড়ি ভাংচুর করে গুড়িয়ে দেয়। এ সময় আমার স্ত্রী ও এসএসসি পরীক্ষার্থী ছেলে বাপ্পি ঠেকাতে গেলে সন্ত্রাসীরা আমার ছেলে, স্ত্রী ও শাশুড়ীকে মারপিট করে। তারা আমার ঘরে থাকা নগদ ৩ লাখ ৯০ হাজার টাকা, দুটি চুরি ও একটি চেনসহ স্বর্ণালংকার লুটে নেয়। ঘটনার সময় আমি বাগেরহাট শহরে অবস্থান করায় খবর পেয়ে বিষয়টি থানা পুলিশকে অবহিত করি। পরে থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়।
আলতাফ শেখের স্ত্রী লিপি বেগম কান্না জড়িত কণ্ঠে বলেন, দুপুরে আঃ রশিদ ও তার পরিবারের সদস্যরাসহ অজ্ঞাত শতাধিক সন্ত্রাসী দা, লাঠি, লোহার রডসহ ধাড়ালো অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে বাড়িতে হামলা চালায়। এসময় আমি তাদের পা জড়িয়ে ধরি কিন্তু তারপরও তারা শোনেনি। আমার মাকে লাথি দিয়ে পুকুরে ফেলে দিয়েছে, ছেলেটাকে মেরেছে, ঘরে থাকা কোরআন শরীফ ছুড়ে ফেলে দিয়েছে। তিনি বলেন, আমার ছেলেটার এসএসসি পরীক্ষা শুরু হয়েছে, আমি এখন কি বরবো ভেবে পাচ্ছি না। আমি ওই সন্ত্রাসীদের শাস্তির দাবি জানাই।
আলতাফ শেখের প্রতিবেশি জাহাংগীর শেখ বলেন, আমাদের গ্রামে কোনদিন এ ধরণের ঘটনা ঘটেনি। শতশত বহিরাগত সন্ত্রাসী মোটরসাইকেল ও অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে গ্রামে আতংক সৃষ্টি করে। রশিদ পরিবারের অত্যাচারে গ্রামের সাধারন মানুষ অতিষ্ট হয়ে উঠেছে।
বাগেরহাট মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহাতাব উদ্দিন বলেন, শ্রমিকলীগ নেতার বসত বাড়িতে হামলার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ প্রেরণ করা হয়েছিল। কিন্তু সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যাওয়ায় কাউকে আটক করা সম্ভব হয়নি। আলতাফ শেখ বাদি হয়ে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। আসামি ধরতে পুলিশি অভিযান অভ্যাহত রয়েছে।