যশোর হাসপাতালে স্থাপন করা হচ্ছে সেই ১৯ মেশিনারিজ

এস হাসমী সাজু
জটিলতা কাটিয়ে অবশেষে যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে স্থাপন করা হয়েছে ৪৫ লাখ টাকা অনুদানের ১৯টি মেশিনারিজ। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অনুমতি পেয়ে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বৃহস্পতিবার এগুলো স্থাপন করেন। এর ফলে এখন থেকে আরও উন্নত চিকিৎসা ও পরীক্ষা নিরীক্ষার সুযোগ পাবে রোগীরা।
হাসপাতাল সূত্র মতে, ডা. একেএম কামরুল ইসলাম বেনু যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক হিসাবে দায়িত্বভার গ্রহনের পর স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে যুগোপযোগী আধুনিক মেশিনের আবেদন করেন। একই সাথে তিনি হাসপাতাল পরিচালনা পরিষদের অনুমোদন ক্রমে বিভিন্ন এনজিও এবং দাতা সংস্থার সাথেও যোগাযোগ করেন। তার চেষ্টার কারণে তুর্কি ইন্টারশ্যাশনাল করপোরেশন এজেন্সি (টিকা) ২০১৭ সালের ২৬ অক্টোবর উন্নত সেবার জন্য ৪৫ লাখ টাকার ১৯টি যন্ত্রাংশ হাসপাতালে প্রদান করে। চায়না, জাপান, জার্মানি ও করিয়ান কোম্পানির এই সকল মেশিনারিজ হচ্ছে, ছয় চ্যানেলের ইসিজি মেশিন ২টি, উন্নতমানের হাইডলিক অপারেশনের টেবিল, একটি অটো ডিজিটাল ডেন্টাল ইউনিট (টেবিল), একটি অত্যাধুনিক থ্রি কালার ডাপ্লোর আল্ট্রাসোনগ্রাম মেশিন, এ্যান্সেথেসিওলোজি মেশিন, বেবি ইনকিউবেটর, সাকার মেশিন দু’টি, অফথো মাইক্রোস কোপ দুইটি, ফটো থেরাপি মেশিন একটি, মাইক্রোসকোপ একটি, একটি পাওয়ার অর্থো ড্রিল মেশিন, প্রসূতি রোগীদের জন্য দুইটি সিটিজি মেশিন, অটোক্লেভ মেশিনসহ ১৯টি আধুনিক মেশিনারিজ। এ মেশিনগুলো হাসপাতালের স্টোরে পৌঁছালেও মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন না থাকায় তা সময় স্থাপন করতে পারেননি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। মঙ্গলবার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে স্থাপনের অনুমোদন আসলে বৃহস্পতিবার থেকে তা ইঞ্জিনিয়াররা হাসপাতালের বিভিন্ন বিভাগে তা স্থাপনের কাজ শুরু করেন।
স্টোর কিপার আফজাল হোসেন বলেন, তত্ত্বাবধায়ক ডা. একেএম কামরুল ইসলামের নির্দেশে মেশিন লাগানোর কাজ শুরু হয়েছে। এর মধ্যে আপারেশন থিয়েটারে, প্রসূতি ওয়ার্ডে, আল্ট্রোসনো বিভাগে, প্যাথলজি ও চক্ষু বিভাগে মেশিনারিজ স্থাপন করেছেন। বাকি আছে ডিজিটাল ডেন্টাল ইউনিট (টেবিল) স্থাপন করতে। যা (আজ) শুক্রবার সংশ্লিষ্ট বিভাগে স্থাপন করা হবে।
হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. একেএম কামরুল ইসলাম বেনু জানান, মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন পেয়ে মেশিনগুলো স্থাপন করা হচ্ছে। যশোরের সন্তান হিসাবে জেলার সবচেয়ে বড় হাসপাতালের জন্য অতি প্রয়োজনীয় মেশিন অনুদান এনে স্থাপন করতে পেরে ভালো লাগছে। তিনি আরও বলেন, এখন থেকে রোগীরা দাঁতের চিকিৎসা, থ্রি কালার ডাপ্লোর আল্ট্রাসোনগ্রাম, ডিজিটাল পদ্ধতিতে চোখের পরীক্ষারসহ অন্যান্য পরীক্ষা-নিরীক্ষার সুযোগ পাবে।

SHARE