দু’গ্রুপের দ্বন্দ্বে কারাবন্দি বাঘারপাড়া বিএনপি নেতা বদিউরের মৃত্যু

বাঘারপাড়া প্রতিনিধি॥ যশোর কেন্দ্রীয় কারাগারে বিনা চিকিৎসা বাঘারপাড়া পৌর বিএনপির সাবেক সহ-সভাপতি বদিউর রহমান (৫০) মারা গেছেন বলে দলটির নেতারা দাবি করেছেন। সোমবার রাতে তিনি মারা যাওয়ার পর মঙ্গলবার দুপুরে জেলা বিএনপির নেতারা প্রেসক্লাব যশোরে সংবাদ সম্মেলন করে এমন অভিযোগ করে বিচার বিভাগীয় তদন্ত দাবি করেছেন।
তবে অভিযোগ মিথ্যা উল্লেখ করে যশোর কেন্দ্রীয় কারাগারের সিনিয়র জেল সুপার কামাল আহমেদ বলেছেন, বদিউর অসুস্থ হওয়ার ৫ মিনিটের মধ্যেই তাকে জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়। এতে তাদের কোন অবহেলা ছিল না। আমাদের প্রতি মিথ্যা অভিযোগ আনা হয়েছে।
কারাগার ও পুলিশ সূত্র মতে, ২৫ আগস্ট বাঘারপাড়ায় বিএনপির সদস্য সংগ্রহ কর্মসূচিতে উপজেলা সভাপতি টিএস আইয়ুবের অনুসারীদের সঙ্গে আবু তাহের গ্রুপের মারামারি হয়। এঘটনায় বাঘারপাড়া থানা পুলিশ বাদী হয়ে একটি মামলা করে। এ মামলায় আবু তাহের গ্রুপের বদিউর রহমান কারাগারে বন্দি ছিলেন। ১১ সেপ্টেম্বর সোমবার রাতে তার বুকে ব্যথা অনুভূত হয়। রাত সাড়ে ১১টার দিকে যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে পাঠালে তিনি মারা যান। তিনি বাঘরপাড়া পৌরসভার দুই নম্বর ওয়ার্ডের আবদুল গনি মিয়ার ছেলে।
হাসপাতালের জরুরি বিভাগের ডাক্তার কাজল মল্লিক বলেন, ‘রাত ১১টা ৫০ মিনিটের সময় হাজতি বদিউরকে হাসপাতালে আনা হয়। হাসপাতালে আনার আগেই তার মৃত্যু হয়ছ।
এদিকে, বদিউরের মৃত্যুর জন্য যশোর জেলা বিএনপি কারা কর্তৃপক্ষের অবহেলাকে দায়ী করেছেন। নেতৃবৃন্দ দাবি করেছেন, বিনা চিকিৎসায় তার মৃত্যু হয়েছে। নেতৃবৃন্দ সংবাদ সম্মেলন করে ঘটনার জন্য বিচার বিভাগীয় তদন্ত কমিটি গঠনের দাবি জানান। তারা অভিযোগ করেন, বদিউরের মতো চৌগাছা উপজেলা বিএনপির সহ-সভাপতি নজরুল ইসলাম শান্তি এবং যশোরের যুবদল নেতা উজ্জ্বলও কারাগারে বিনা চিকিৎসায় মারা যান।
সংবাদ সম্মেলনে জেলা বিএনপির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শামসুল হুদা, সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট সৈয়দ সাবেরুল হক সাবু, সাংগঠনিক সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন খোকন, যুবদল নেতা শহিদুল বারী রবুসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
এদিকে বিএনপির কেন্দ্রীয় সদস্য ও উপজেলা সভাপতি টিএস আইয়ুবের প্ররোচনায় মিথ্যা মামলায় আটককৃত নেতাদের নিঃশর্ত মুক্তি দাবি ও বদিউরের মৃতুতে শোক র‌্যালি বের করেছে বাঘারপাড়া থানা ও পৌর বিএনপির নেতারা। গতকাল বদিউরের মৃতদেহ নিয়ে পৌর শহরে এ শোক র‌্যালি বের করে।

SHARE