ঝিনাইদহের নাটাবাড়িয়ায় জমি বিরোধে ভাইয়ের বিরুদ্ধে ভাইয়ের ৫ মামলা

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি ॥ ঝিনাইদহের নাটাবাড়িয়ায় জমিজমা বিরোধে জড়িয়ে ভাইয়ের বিরুদ্ধে ভাই একের পর মিথ্যা ঠুকে চলেছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। আপন সহোদর আমিন শেখের জমি ফেরত না দেয়ার অসৎ উদ্দেশ্যে বারেক শেখ মিথ্যা নাটক সাজিয়ে এ পর্যন্ত ৫টি মিথ্যা মামলা ঠুকেছেন। এনিয়ে এলাকায় ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।
গ্রামবাসি জানায়, ভাইকে জব্দ করতে ও জমি ফেরত না দেয়ার ধান্দায় বারেক শেখ মামলায় জড়িয়ে ফেলছেন ভাইকে। প্রতিবেশি অনেকে জানান, সেজো ভাই বারেক শেখ কৌশলবাজী ও টাকাওয়ালা আর মেঝো ভাই আমিন শেখ দিনমুজুর। বড় ভাই আবুল শেখ ও বারেক শেখ মিলে সেজো ভাই আমিন শেখের জমি গ্রাস করতে বিভিন্ন ষড়যন্ত্র করে চলেছে। গ্রামের ৫১৫ দাগে আমিন শেখের ১৩.৬৬ পয়েন্ট জমি জোর করে দখল করার চেষ্টা করছে বারেক শেখ। ৪১ শতক জমি ৪ ভাইয়ের নামে রেষ্ট্রি করেন। এরমধ্যে ছোট ভাই মারা গেলে তার স্ত্রীর কাছ থেকে ৩ ভাই মিলে তার অংশ খরিদ করে নেন। এরপর ৪১ শতক জমির মালিক হয় বাকি তিন ভাই। পরে বড় ভাই আবুল শেখ ১৩.৬৬ শতক জমি বারেকের সাথে অদল বদল করে নিতে চান কিন্তু আমিন শেখ তাতে রাজী হননি। এনিয়েই তাদের বিরোধ। এখন মামলায় জড়িয়ে ভাইকে শায়েস্তার অপচেষ্টা শুরু হয়েছে বলে দাবি স্থানীয়দের।
নাটাবাড়িয়া ওয়ার্ডের বর্তমান ইউপি সদস্য মতিয়ার রহমান জানান, বারেক শেখ মিথ্যা মামলা করে আমিনকে চাপে ফেলে তার জমি আতœসাতের অপকৌশল করছে। কেউ মিমাংসার প্রস্তাব দিলে তাকেও মিথ্যা মামলায় ঠুকে দেখে নেয়ার হুমকি দেয়। এ পর্যন্ত জমি আতœসাতের অসৎ উদ্দেশ্যে আমিন শেখের নামে ৫টি মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করছেন।
হলিধানী ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রশিদ মিয়া জানান, বারেককে সালিশে বসার জন্য অনেক বার নোটিশ পাঠানো হয়েছে। কিন্তু তিনি স্থানীয় সরকারকে তোয়াক্কা না করে বারংবার আমিনের নামে মামলা করে যাচ্ছেন।
এ ব্যাপরে অভিযুক্ত বারেক শেখের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, মেঝো ভাই আমিন ও গ্রামবাসি আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে। কোর্টে মামলা করেছি বলেই ইউনিয়ন পরিষদের সালিশে যায়নি।

SHARE