কালনাঘাটে পাাঁকা রাস্তার পার্শ্বের সরকারি জমির মাটি কেটে নিচ্ছে দূর্বত্তরা

লোহাগড়া (নড়াইল) প্রতিনিধি॥ কালনা-নড়াইল মহাসড়কের কালনাঘাট সংলগ্ন বন্ধ হয়ে যাওয়া মা-বাবা ইটভাটার সামনে থেকে পাাঁকা রাস্তার পার্শ্বের সরকারি জমি থেকে মাটি কেটে নিয়ে যাচ্ছে দূর্বত্তরা। মাটি কাটার ফলে সরকারি জায়গায় বড়বড় গর্তের সৃষ্টি হচ্ছে। পাশাপাশি ঝুঁকিতে পড়েছে কালনা-নড়াইল মহাসড়ক। মাটি কাটা বন্ধ না করলে মহাসড়কটি দ্রুত ক্ষতিগ্রস্থ হতে পারে বলে আশংকা করছেন এলাকাবাসি।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার সীমান্তবর্তী কালনাঘাট সংলগ্ন মহাসড়কের পার্শ্বে কয়েক বছর পূর্বে অবৈধভাবে গড়ে ওঠে মা-বাবা নামক ইটভাটা। ভাটার পরিচালক ছিলেন লোহাগড়া ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান বদর খন্দকার। ইটভাটা তৈরির যথাযথ নিয়ম না মানায় প্রশাসন ভাটাটি চলতি বছর বন্ধ করে দেয়। ওই ইটভাটার পার্শ্বের মহাসড়ক সংলগ্ন সরকারি জায়গা থেকে ভাটার পরিচালক বদর খন্দকার ভেকু মেশিন দিয়ে মাটি কেটে নিয়ে যাচ্ছেন। ফলে ঝুঁকির মধ্যে পড়েছে মহাসড়কটি। রাস্তার পার্শ্বের মাটি কেটে নেয়ায় যে কোন সময় পাঁকা রাস্তাটি(মহাসড়ক) ধ্বসেপড়ে বড় দূর্ঘটনা ঘটতে পারে বলে এলাকাবাসী জানায়। প্রতিদিন ওই মহাসড়ক দিয়ে হাজার হাজার বাস, ট্রাক সহ বিভিন্ন যানবাহন চলছে। ভৌগলিকভাবে বন্ধ হয়ে যাওয়া ওই ভাটাটির অবস্থান লোহাগড়া উপজেলার ওপর হলেও মূলত ভাটার জমি(মাটি কাটার স্থান) গোপালগঞ্জ জেলার কাশিয়ানি উপজেলার চরজাজিরা মৌজায়। যেকারনে দস্যুরা সহজেই মাটি কেটে নিয়ে যাচ্ছে। এ বিষয়ে কথা বলতে অভিযুক্ত বদর খন্দকারের সাথে যোগাযোগ করা না গেলেও লোহাগড়া ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম সিকদার বলেন, মহাসড়কের পার্শ্ব থেকে মাটিকেটে নেয়ায় মহাসড়কটি বিপর্যয়ের মুখে পড়তে পারে। এছাড়া সরকারি জমির মাটি কেটে নেয়া বেআইনী। এ বিষয়ে প্রশাসনের নজর দেয়া প্রয়োজন।

SHARE