কপিলমুনিতে গড়ে উঠেছে সুদমুক্ত ঋণ প্রকল্প,সহায়তা পাচ্ছে অসহায়রা

এস.এম.লোকমান হেকিম (কপিলমুনি) প্রতিনিধি॥ পাইকগাছার হরিঢালী ইউনিয়ানের নগর শ্রীরামপুর গ্রামে অসহায় দুস্থদের সহায়তা দিতে মসজিদ ভিত্তিক সুদ মুক্ত ঋণ প্রকল্প চালু করেছে স্থানীয় গ্রাম বাসি। সরেজমিনে দেখাযায় ঐ গ্রামের ডাক্তার এস, আজিজুল ইসলাম ও খুলনা বিভাগের সাবেক শ্রেষ্ঠ ইমাম মুফতি মাওঃ আঃ হান্নান এর প্রচেষ্টায় গড়ে উঠেছে এই সুদমুক্ত ঋণ প্রকল্প। সুদে জর্জরিত অসহায় গরিবরা যখন বিভিন্ন এনজিওর টাকা নিয়ে বাড়ি ঘর ছাড়তে থাকে কিস্তির দেনা নিয়ে,সে সময় তিনি সুদের ব্যাপারে ধারণা দেন ইসলামের আলোর ভিত্তিতে। তারই ধারাবাহিকতায় প্রবাসি ও গ্রামবাসির সহযোগিতায় সম্পুর্ন সুদমুক্ত ঋণ প্রকল্প নামক সমিতি প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে মসজিদ ভিত্তিক ভাবে। এলাকার সর্বস্তরের মানুষের সহযোগিতায় জীবিত ও মৃত ব্যক্তিদের নামে এককালীন ছদকা দান নিয়ে গুটি কয়েকজন মিলে শুরু কেেরছিল এ প্রকল্প। এখন তা অনেক বিস্তার লাভ করেছে বলে জানান ঐ সংগঠনের কর্মকর্তা মাষ্টার সোহরাব আলী। তিনি আরো জানান যে এ পর্যন্ত দাতা জীবিত ও মৃত সদস্য সংখ্যা ৫০ জনের উপরে ছাড়িয়ে গেছে। তা ছাড়া আমরা সুদমুক্ত প্রকল্পের জন্য সদস্য সংগ্রহ করছি জন প্রতি সর্ব নিম্ম ৫০০ টাকা হতে ৫০ হাজার টাকা পর্যন্ত। এ ছাড়া ঐ প্রকল্পের টাকা গ্রামের অসহায় যারা এনজিওর কিস্তির সঙ্গে সম্পৃক্ত ছিল তাদের জন্য উম্মুক্ত করা হয়েছে যেন তারা ভুলেও সুদের সঙ্গে জড়িত না হয়। মাষ্টার আবু বক্কার জানান আমরা ৩ মাস থেকে ৫ মাস পর্যন্ত সর্ব নিম্ম ৫০০০ হাজার টাকা কিস্তি দিয়ে থাকি। সুদ মুক্ত ঋণ পাওয়া একজন আজিবার বলেন আমি ঐ প্রকল্পের টাকা এবং আমার নিজের কিছু দিয়ে একটা গরু কিনে ভাল উপকার পেয়েছি,যেটা আমার দ্বারা সম্ভব ছিল না। ঐ গ্রামের মনি সরদার বলেন আমি মাঝে মাঝে ঐ প্রকল্পের সুদমুক্ত টাকা নিয়ে বিভিন্ন রকম ফলের ব্যবসা করে থাকি এবং সময় মত তা পরিশোধ করি যেন অন্যরা এ সুবিধা ভোগ করতে পারে। সুবিধা ভোগী লুৎফর ঐ প্রকল্পের টাকা দিয়ে বাগদা চিংড়ি ধরার চারুই খাচা তৈরি করে সচ্ছলতা ফিরে পেয়েছেন বলে জানান। এমনি ভাবে নগর শ্রীরামপুরের নারী পুরুষ মিলে বিভিন্ন ছোটখাটো ব্যবসা করে স্বচ্ছলতা ফেরাতে জোর প্রচেষ্টা করে যাচ্ছেন এ প্রকল্পের মধ্যে দিয়ে। সুদমুক্ত প্রকল্পের আরেক কর্মকর্তা ও সাবেক মেম্বার আলহাজ্ব আবুল কাশেম এ প্রতিনিধিকে জানান প্রায় প্রতি সপ্তাহে আমার গ্রামের মা বোনরা এনজিওর কিস্তি নিয়ে ছোটাছুটি করে যেটা আমাদের ইসলামে বৈধতা নেই,অথচ আমরা অনেকেই স্বচ্ছলতা নিয়ে ঘুরে বেড়াই। তাদের ঐ সুদ থেকে বের করানোর জন্যই আমাদের এ প্রচেষ্টা। সুদমুক্ত ঋণ প্রকল্পের প্রতিষ্টাতা সভাপতি এস,আজিজুল ইসলাম এ প্রতিনিধিকে বলেন আমি গ্রামকে সুদ মুক্ত ও শিক্ষা প্রকল্পের কাজ করে জীবনের সব চেয়ে একটা ভাল কাজ করেছি বলে মনে করি,কারন প্রত্যেকটা জাতির মধ্যে সুদ দেওয়া নেওয়া হারাম করা হয়েছে। ঐ গ্রামের মসজিদের খতিব ও সুদমুক্ত প্রকল্পের উদ্দ্যোক্তা মুফতি মাওঃ আঃ হান্নান বলেন আমাদের মসজিদের বিল বোর্ড ও প্রকল্পের কর্মসুচি দেখে আশপাশ গ্রামের মধ্যে অনেকেই এমন মহতি প্রকল্পের ব্যাপারে চিন্তা করছেন।

SHARE