উত্তর কোরিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র ঠেকাতে পারবে যুক্তরাষ্ট্র?

সমাজের কথা ডেস্ক॥ উত্তর কোরিয়া সর্বশেষ দূর পাল্লার ব্যলিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার পর যুক্ররাষ্ট্র এ হুমকি ঠেকাতে সক্ষম হবে কিনা তা নিয়ে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে।
যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক বাহিনীর সদরদপ্তর পেণ্টাগন হুমকি ঠেকানোর ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী হলেও অন্য অনেকেই এ ব্যাপারে সন্দিহান।

গত মঙ্গলবার দেশের পশ্চিমাঞ্চল থেকে পরীক্ষামূলকভাবে একটি ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ করেছে উত্তর কোরিয়া। ক্ষেপণাস্ত্রটি ২৮০২ কিলোমিটার উচ্চতায় উঠে মাত্র ৩৯ মিনিটের মধ্যে ৯৩৩ কিলোমিটার পথ পাড়ি দিয়ে জাপানের বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চলের জলসীমায় গিয়ে পড়ে।
হোয়াসং-১৪ ক্ষেণাস্ত্রটি পৃথিবীর যে কোনো অংশে আঘাত হানতে সক্ষম বলে দাবি করেছে উত্তর কোরিয়া।
ওদিকে, বিশেষজ্ঞদের ধারণা, ক্ষেপণাস্ত্রটি যুক্তরাষ্ট্রের আলাস্কায় আঘাত হানতে সক্ষম। উত্তর কোরিয়া যে দীর্ঘপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষামূলক উৎক্ষেপণ করেছে সেটি যুক্তরাষ্ট্রও নিশ্চিত করেছে।
ফলে স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন দেখা দিয়েছে যে, উত্তর কোরিয়ার এই ক্ষেপণাস্ত্রের হুমকি কিংবা তাদের একঝাঁক ক্ষেপণাস্ত্রের হুমকি মোকাবেলা করতে যুক্তরাষ্ট্রের সেনাবাহিনী কতটা সক্ষম?
বুধবারের সংবাদ ব্রিফিংয়ে পেণ্টাগনের মুখপাত্র নৌবাহিনীর ক্যাপ্টেন জেফ ডেভিস বলেছেন, “উদীয়মান এমন ছোটখাট হুমকি ঠেকানোর ব্যাপারে আমাদের আস্থা আছে।”
মে মাসে ক্ষেপণাস্ত্র বিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্র দিয়ে উত্তর কোরিয়ার আইসিবিএম ক্ষেপণাস্ত্রের একটি রেপ্লিকা ধ্বংসের সফল পরীক্ষা চালানো হয়েছে বলে উল্লেখ করেছেন ডেভিস। কিন্তু সেই পরীক্ষাটি পুরোপুরি নিখুঁত ছিল না বলেও স্বীকার করেছেন তিনি।
ডেভিস বলেন, “ওই উদ্যোগের মিশ্র ফল পেয়েছি আমরা। তবে আমাদের একাধিক ক্ষেপণাস্ত্র বিধ্বংসী অস্ত্র ছোড়ার সক্ষমতা আছে।”
তবে ডেভিস একথা বললেও মে মাসের ওই পরীক্ষাটির পর থেকে পেন্টাগন যে তলে তলে প্রতিরক্ষা সমক্ষমতা আরও বাড়ানোর জন্য কাজ করেছে তারও প্রমাণ পাওয়া গেছে একটি নথি থেকে।
আর বিশেষজ্ঞরা সতর্ক করে দিয়ে বলছেন, যুক্তরাষ্ট্রের বর্তমান ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা এমন পর্যায়ে আছে যে, তারা এখন একটি কিংবা খুব বেশি হলে স্বল্পসংখ্যক ক্ষেপণাস্ত্র হুমকি মোকাবেলা করতে প্রস্তুত।

কিন্তু উত্তর কোরিয়া যেভাবে প্রযুক্তি এবং অস্ত্র উৎপাদনে এগিয়ে চলেছে তাতে করে যুক্তরাষ্ট্র এর সঙ্গে তাল মিলিয়ে না চললে তাদের প্রতিরক্ষা সক্ষমতায় ভাটা পড়তে পারে।
যুক্তরাষ্ট্রের মিসাইল ডিফেন্স এডভোকেসি এলায়েন্স এর স্থপতি রিকি এলিসন বলেছেন, আগামী চার বছরে যুক্তরাষ্ট্রকে তাদের বর্তমান প্রতিরক্ষা সক্ষমতার আরও বৃদ্ধি ঘটতে হবে। ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা মোতায়েনে তাদেরকে আরও বেশি ক্ষিপ্রগতিতে কাজ করতে হবে।

SHARE