আল বিদা মাহে রমজান

সমাজের কথা ডেস্ক॥ মাহে রমজানুল মোবারক একেবারেই শেষপ্রান্তে। ৬১৯ খ্রিস্টাব্দে এই মাহে রমজানের ২০ তারিখ ওফাতপ্রাপ্ত হয়েছিলেন আমাদের প্রিয় নবী হুজুরে কারীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের প্রিয়তমা স্ত্রী হযরত খাদীজা (রাঃ)। তিনি নারী পুরুষের মধ্যে প্রথম ইসলাম ধর্ম গ্রহণকারী, নূরনবীর সাথে প্রথম নামাজ আদায়কারী। ইসলামের একেবারে শুরুর যুগে ধনসম্পদ ও মূল্যবান পরামর্শ দিয়ে অবিস্মরণীয় ও বরণীয় হয়ে আছেন এ অতুলনীয় বিশ্ববরেণ্য মহিলা। তার একটি বড় পরিচয় ৬১০ খ্রিস্টাব্দে মক্কার জাবালে নূরের হেরা গুহা আলোকিত করে যখন পাক কালাম কুরআন শরীফ নাযিলের শুভ সূচনা হয়েছিল তখন সে পর্বতশৃঙ্গে স্বামীভক্ত ধনাঢ্য খাদীজা মাথায় করে পানাহার নিয়ে যেতেন আখেরি পয়গাম্বরের জন্য। তাই আজ কুরআন নাযিলের মাসে, কুরআনুল কারীম অবতীর্ণ হওয়ার পুণ্য স্মৃতিময় রজনী শবে কদরের প্রাক্কালে সর্বোপরি কুরআন শরীফ নাযিলের সূচনা পর্বের মাত্র ৯ বছরের ব্যবধানে এ মাসে ওফাতপ্রাপ্ত হওয়া মহীয়সী মহিলা মা খাদীজা আমাদের হৃদয় নিংরানো স্মরণ শ্রদ্ধা, সালাম ও ভালবাসা পাওয়ার দাবি রাখে।
হযরত খাদীজার (রাঃ) বাল্য ও কৈশোর জীবনের তেমন কোন তথ্য সিরাতের গ্রন্থাবলীতে পাওয়া যায় না। তবে সেই জাহিলী সমাজে তিনি যে অতি পুতঃপবিত্র স্বভাব-বৈশিষ্ট্য নিয়ে বেড়ে উঠেছিলেন সে কথা বিভিন্নভাবে জানা যায়। আবু হালা হিন্দা ইবন যুরারা আত-তামীমীর সঙ্গে তাঁর প্রথম বিয়ে হয়। তার মৃত্যু পর আতিক ইবন আবিদ মতান্তরে আয়িজের সঙ্গে দ্বিতীয় বিয়ে হয়। বালাজুরী বলেছেন, দ্বিতীয় স্বামী আতীকের সঙ্গে ছাড়াছাড়ি হয়ে যায়। তারপর দয়াল নবী হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) তাকে স্ত্রীর মর্যাদা দিয়ে ঘরে তোলেন।
আল্লাহ পাক ইসলামের প্রতি, ইসলামের মহান নবীর প্রতি এ মহীয়সী মহিলার মতো আমাদেরও সর্বস্ব ত্যাগী হওয়ার তাওফিক দান করুন।

SHARE