kustia
সমাজের কথা ডেস্ক॥ কুষ্টিয়া সদরে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে ঘিরে আওয়ামী লীগ ও বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকদের সংঘর্ষে একজন নিহত হয়েছেন। আহত হন অন্তত ১০ জন।
বৃহস্পতিবার সকালে আলমপুর ইউনিয়নের দহকুলা গ্রামে এ সংঘর্ষ হয় বলে কুষ্টিয়া মডেল থানার ওসি সাহাবুদ্দিন চৌধুরী জানান।
নিহত লাল্টু মোল্লা (৪২) ওই গ্রামের সোহরাব উদ্দিনের ছেলে।
আহতদের কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তাৎক্ষণিকভাবে তাদের নাম জানা যায়নি।
আগামী ৭ মে কুষ্টিয়া সদর উপজেলার আলমপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে।

এলাকাবাসী জানান, বুধবার বিকালে দহকুলা বাজারে জেলা আওয়ামী লীগের নির্বাচনী জনসভা হয়। সেখানে বক্তারা বিদ্রোহী প্রার্থীদের বিরুদ্ধে বক্তব্য দিলে উত্তেজনা দেখা দেয়।
স্থানীয়দের বরাত দিয়ে ওসি সাহাবুদ্দিন চৌধুরী বলেন, বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে আলমপুর ইউনিয়ন পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী আক্তারুজ্জামান বিশ্বাসের লোকজন ও দলের বিদ্রোহী (স্বতন্ত্র) প্রার্থী শেখ সিরাজ উদ্দিনের লোকজন সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে।
“সংঘর্ষে জড়িয়ে লাল্টু মোল্লাসহ ১০/১১ জন আহত হন। তাদেরকে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসক লাল্টু মোল্লাকে মৃত ঘোষণা করেন।”
ওসি বলেন, লাল্টু মোল্লার মৃত্যুর সংবাদ ছড়িয়ে পড়লে এলাকায় পুনরায় সংঘর্ষ শুরু হয়। পরে অতিরিক্ত পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।
কুষ্টিয়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জয়নাল আবেদীন বলেন, পরিস্থিতি শান্ত হওয়ার পর এখন পুলিশের নিয়ন্ত্রণে আছে। এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

SHARE